free web tracker
শেয়ার করুন:

ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ অর্থনীতিবিদদের পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন নিয়ে যে আশংকার কথা বলা হচ্ছে তা নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, সমপ্রতি পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন নিয়ে রিজার্ভে বড় ধরনের চাপ পড়ার আশংকা করছে দেশের অর্থনীতিবিদরা। বাংলাদেশ ব্যাংক এ বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়াতে বিদেশী মুদ্রায় প্রচলিত তিনটি বন্ড কেনার শর্ত শিথিল করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একই সঙ্গে বিদেশী মুদ্রায় অ্যাকাউন্ট (এফসি অ্যাকাউন্ট) খোলার শর্তও শিথিল করা হয়েছে। বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন বাতিলের প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজস্ব অর্থায়নে দেশের সবচেয়ে বড় অবকাঠামো প্রকল্প বাস্তবায়নের ঘোষণা দেয়ার পরপরই ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ড, ইউএস ডলার প্রিমিয়াম বন্ড এবং ইউএস ডলার ইনভেস্টমেন্ট কেনার শর্ত শিথিল করে ১০ জুলাই একটি সার্কুলার জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সার্কুলারে এফসি অ্যাকাউন্ট (বৈদেশিক মুদ্রা অ্যাকাউন্ট) খোলার ক্ষেত্রেও শর্ত শিথিল করা হয়েছে। সার্কুলারটি বাংলাদেশ ব্যাংকের সব শাখা এবং সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

এদিকে সর্বশেষ আকু পেমেন্টের কারণে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ আবারও ১০ বিলিয়নের নিচে নেমে এসেছে। ৯ জুলাই এশিয়ান কিয়ারিং ইউনিয়ন (আকু) বিল ৬৬ কোটি ৭৬ লাখ ডলার পরিশোধ করার ফলে রিজার্ভের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯৮৫ কোটি ৪৫ লাখ মার্কিন ডলার। এর আগের দিন রিজার্ভ ছিল ১ হাজার ৩৯ কোটি ২৫ লাখ ডলার। এর আগে জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছিলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকে বর্তমানে যে বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ আছে পদ্মা সেতুর জন্য তা থেকে এক বিলিয়ন ডলার নিলে তেমন সমস্যা হবে না। প্রবাসীদের কাছে ৭৫ কোটি ডলারের ‘সভরেন বন্ড’ ছাড়া হবে বলেও ঘোষণা দেন তিনি। খবর দৈনিক যুগান্তরের।

জানা গেছে, প্রবাসীদের কাছে ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ড, ইউএস ডলার প্রিমিয়াম বন্ড এবং ইউএস ডলার ইনভেস্টমেন্ট বন্ড জনপ্রিয় করার মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ বাড়াতে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সার্কুলারে বলা হয়েছে, বৈদেশিক মুদ্রায় প্রচলিত ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ড, ইউএস ডলার প্রিমিয়াম বন্ড এবং ইউএস ডলার ইনভেস্টমেন্ট বন্ড কিনতে বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের সত্যায়নের শর্ত প্রত্যাহার করা হয়েছে। এসব বন্ডে বিনোয়োগ প্রক্রিয়া সহজ করতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সার্কুলারে বলা হয়েছে, বর্তমানে বৈদেশিক মুদ্রায় খোলা (এফসি) অ্যাকাউন্ট ও বন্ড কেনার জন্য বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশী পাসপোর্টধারী নাগরিক ও বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিদেশী নাগরিকদের কাগজপত্র বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে সত্যায়িত করতে হয়। এটি বিনিয়োগকারীদের জন্য অসুবিধাজনক ও ব্যয়বহুল। এ সমস্যা সমাধানে সিদ্ধান্ত হয়েছে, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস হতে সত্যায়ন করার পরিবর্তে বাংলাদেশী পাসপোর্টধারীরা পাসপোর্টের কপি দিয়ে এবং বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিদেশী নাগরিকরা পাসপোর্টে বাংলাদেশ দূতাবাস হতে পাওয়া ‘ভিসার প্রয়োজন নেই’ সিলসহ পাসপোর্টের কপি দিয়ে এসব বন্ড কেনার সুযোগ পাবেন। উল্লেখ্য, সরকারের অন্যতম অগ্রাধিকার প্রকল্প পদ্মা সেতুতে বিশ্বব্যাংক ১২০ কোটি ডলার ঋণ দিতে চেয়েছিল। তবে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে গত ২৯ জুন ঋণচুক্তি বাতিল করেছে দাতা সংস্থাটি। এতে বিদেশী অন্য সংস্থাগুলোর ঋণ পাওয়াও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ৯ জুলাই মন্ত্রিসভার বৈঠকেও নিজেদের অর্থে পদ্মা সেতু নির্মাণের কাজ শুরুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জানা গেছে, গত বছরের নভেম্বর থেকে সর্বশেষ ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রায় চার মাস এ রিজার্ভ ১ হাজার কোটি ডলারের নিচে অবস্থান করে। ফলে দীর্ঘদিন চাপের মুখে ছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ। তারপর সামান্য কয়েক দিন তা দশ বিলিয়নে অবস্থান করে। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে, গত বছরের সেপ্টেম্বরের শুরুতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ কমে প্রায় ৯০০ কোটি ডলারে নেমে আসে। অক্টোবর মাসে তা আবার হাজার কোটি ডলার ছাড়ায়। তবে নভেম্বর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তা ৯০০ কোটি ডলারের কাছাকাছি অবস্থান করছিল। তবে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে তা বাড়তে শুরু করে। সূত্র জানিয়েছে, চাহিদা অনুপাতে ডলারের সরবরাহ না বাড়ায় টানা ২২ মাস বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ১০ বিলিয়ন ডলারের ওপরে থাকার পর গত সৈপ্টেম্বরে তা ৯ বিলিয়নে নেমে আসে। এরপর অক্টোবরে তা আবার ১০ বিলিয়ন ছাড়িয়ে যায়। নভেম্বরে আবার নেমে আসে ৯ বিলিয়নে। ডিসেম্বর জুড়ে এটি ৯ বিলিয়নের ঘরে ছিল। মে মাসে আকুর পেমেন্টে পরিশোধ করার পর বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে সাড়ে ৯০০ কোটি ডলার দাঁড়ায়। ওই সময়ে ৭৩ কোটি ২০ লাখ ডলারে আকু পেমেন্ট করা হয়। এর আগে এপ্রিল মাসের ২৩ তারিখে রিজার্ভ ১ হাজার কোটি ডলার ছাড়িয়ে যায়। ফলে টানা তিন সপ্তাহ তা দশ বিলিয়ন ডলারের ওপরে ছিল। গত মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে আকু পেমেন্ট করার পর রিজার্ভ ১০ বিলিয়নের নিচে নেমে আসে। ফলে টানা দেড় মাস পর এপ্রিল মাসে তা আবার ১০ বিলিয়ন ছাড়িয়ে যায়।

তথ্য মতে, প্রবাসীরা গত ডিসেম্বর মাসে রেকর্ড পরিমাণ রেমিট্যান্স পাঠায়। সে মাসে তারা প্রায় ১১৪ কোটি ডলার দেশে পাঠায়। কিন্তু তারপরের মাস জানুয়ারিতে ডিসেম্বরের রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড হয়। জানুয়ারি মাসে প্রবাসীরা মোট ১২১ কোটি ডলার পাঠায়। এদিকে গেল ২০১১-১২ অর্থবছরের প্রবাসীরা রেকর্ড ১ হাজার ২৮৪ কোটি ৬০ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠায়। এর পরিমাণ আগের অর্থবছরের তুলনায় ১০ দশমিক ২৬ শতাংশ বেশি। ওই সময়ে রিজার্ভের পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ায় ১ হাজার ৩২ কোটি ৫৫ লাখ ৯০ হাজার ডলার। সূত্র জানায়, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ ১০ বিলিয়ন ছাড়ায়। কিন্তু মার্চের প্রথম সপ্তাহে এসে আকু পেমেন্ট করতে হয় বাংলাদেশ ব্যাংককে। ফলে তা নেমে আসে। এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়ন হল বহুপীয় ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মাধ্যমে একটি আন্তঃআঞ্চলিক চলতি লেনদেন নিষ্পত্তি ব্যবস্থা।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, শ্রীলংকা, মিয়ানমার, ইরান ও মালদ্বীপ এর সদস্য। ডলার ও ইউরোর মাধ্যমে আকুর বিনিময় বা লেনদেন নিষ্পন্ন হয়ে থাকে। এশিয়ার এ ৯টি দেশের মধ্যে আমদানি ও রফতানি করার লক্ষ্যে দেশগুলোতে যে লেনদেন হয় তা প্রতি দু’মাস পরপর পেমেন্ট করতে হয়। সংশ্লিষ্ট দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এসব পেমেন্ট করে থাকে বলে জানা যায়।

এখন পরিস্থিতি যাই হোক না কেনো, পদ্মা সেতু নিজেদের অর্থায়নে করতে হলে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এজন্য অর্থনীতিবিদরা বলছেন, বাজেটের ব্যয় সংকুচিত করতে হবে। নইলে এর প্রভাব পড়বে দেশের সার্বিক অর্থনীতির ওপর। যা সামাল দিতে বেগ পেতে হবে।


সতর্কবার্তা:

বিনা অনুমতিতে দি ঢাকা টাইমস্‌ - এর কন্টেন্ট ব্যবহার আইনগত অপরাধ, যে কোন ধরনের কপি-পেস্ট কঠোরভাবে নিষিদ্ধ, এবং কপিরাইট আইনে বিচার যোগ্য!

July 14, 2012 তারিখে প্রকাশিত


37 জন মন্তব্য করেছেন

মন্তব্য লিখতে লগইন করুন

আপনি হয়তো নিচের লেখাগুলোও পছন্দ করবেন

এএমএস মেশিনের মাধ্যমে মাত্র ১০ সেকেন্ডে সিনথেটিক ডায়মন্ড সনাক্ত করা যায়
বাংলাদেশ-ভারত অভিন্ন মুদ্রা চালু নিয়ে তুমুল বিতর্ক
আন্তর্জাতিক অর্থনীতি: একীভূত হলো বিশ্বখ্যাত লাফার্জ ও হোলসিম সিমেন্ট কোম্পানি
বাংলাদেশ যুদ্ধজাহাজ রপ্তানি করবে
অর্থনীতিতে পড়বে ব্যাপক প্রভাব: আবারও বাড়ছে বিদ্যুতের দাম
সফল উদ্যোক্তা: বায়োগ্যাস প্ল্যান্টের মাধ্যমে গ্যাস ও বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ করে স্বাবলম্বী দুই ভাই
কৃষকদের বাঁচাতে আলু রফতানির উদ্যোগ
ঘরে বসে করার মত দশটি কাজ
উৎপাদনে ব্যাপক প্রভাব পড়ার আশংকা: আলু ক্ষেতে লেট ব্লাইট রোগের প্রাদুর্ভাব
জ্বালানি তেল সংকট: বোরো চাষ ব্যাহত ও যানবাহন বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশংকা
হরতাল-অবরোধের কারণে জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে: পেঁয়াজের কেজি ১৫০ টাকা!
টাঙ্গাইলের তাঁতের শাড়ি বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়
E
Close You have to login

Login With Facebook
Facility of Account