ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ইফতার পার্টিতে বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত

হোয়াইট হাউজে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে মুসলিম দেশের রাষ্ট্রদূত ছাড়াও বিশিষ্টজনদের আমন্ত্রণ জানানো হয়

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ইফতার পার্টিতে বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন অংশ নিয়েছেন। হোয়াইট হাউজে গত বুধবার অনুষ্ঠিত এই মাহফিলে মুসলিম দেশের রাষ্ট্রদূত ছাড়াও বিশিষ্টজনরা আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইফতার মাহফিলে অংশ নেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন। হোয়াইট হাউজে গত বুধবার আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে মুসলিম দেশের রাষ্ট্রদূত ছাড়াও বিশিষ্টজনদের আমন্ত্রণ জানানো হয়।

দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম বছর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেননি। দ্বিতীয় বছরে এসে তিনি হোয়াইট হাউজের বিগত দুই দশকের রেওয়াজের অংশ হলেন।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে একই টেবিলে বসে ইফতার ও রাতের খাবার গ্রহণ করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিয়োজিত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন। এই সময় তিনি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে কুশলাদি বিনিময় করেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ বাংলাদেশের মানুষের শুভেচ্ছা পৌঁছে দিয়েছেন।

জানা যায়, সেখানে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স, অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মুচিন ও ট্রাম্পের জামাতা জারেড কুশনার, জর্ডানের রাষ্ট্রদূত দিনা কাওয়ারের পাশে বসেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আরব দেশের রাষ্ট্রদূতদের মধ্যে ছিলেন সৌদি আরব, মিসর, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, কুয়েত, তিউনিসিয়া এবং ইরাকের রাষ্ট্রদূত।

ডোনাল্ড ট্রাম্প অনুষ্ঠানের সূচনা করেন যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম সম্প্রদায়কে ধন্যবাদ জানানোর মধ্যদিয়ে। ট্রাম্প বলেন, ইফতারে পরিবার এবং বন্ধুরা এক হয় শান্তি উদযাপনের জন্য।

যদিও এই মাহফিলের সময় বাইরে মুসলিম আমেরিকানরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন। তারা অভিযোগ করেছেন যে, মুসলিম-আমেরিকানদের অধিকার এবং মর্যাদা নিয়ে কর্মরত জাতীয়ভিত্তিক অনেক সংগঠনকেই আমন্ত্রণ জানানো হয়নি ওই ইফতার পার্টিতে।

ইসলামিক সোসাইটি অব নর্থ আমেরিকা ও দ্য কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশন্সের নেতৃবৃন্দ এমন আয়োজনের কট্টর সমালোচনা করে বলেন, এতে আমেরিকান মুসলিমদের চেয়ে বিদেশী প্রতিনিধির সংখ্যাই ছিল বেশি।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...