এবার আজব এক পেশা হলো কান্না!

একটা শবযাত্রায় তারা কতো পারিশ্রমিক নেবেন তা নির্ভর করে অনুষ্কঠানটি কত বড় হবে তার ওপর নির্ভর করে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সত্যিই আজব দেশের এক আজব পেশা হলো কান্না! কান্নার কথা শুনে কেও হাসে না। তবে এমন কথা শুনে সবাই সত্যিই হাসবে। আজব এই কান্না করার সংস্থাটির নাম ‘দ্য ফিউনেরাল কন্ট্রাকটরস অ্যাসোসিয়েশন’।

পৃথিবীতে কতো রকম বিচিত্র পেশা রয়েছে তা গুনে শেষ করা যাবে না। তবে এবার এক ব্যতিক্রমি পেশার খবর পাওয়া গেছে। আর সেটি হলো কান্না! ঘানার একদল নারীরা পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন কান্নাকে। তবে সাধারণ কোনো কারণে নয়, টাকার বিনিময়ে এই নারীরা দল ধরে কান্না করেন মৃত ব্যক্তির শবযাত্রা অনুষ্ঠানে!
এমন আজব ঘটনাটি আফ্রিকার দেশ ঘানার।

সংবাদ মাধ্যমের এক খবরে জানা যায়, বিষয়টা আসলে এমন, অনেকেরই টাকা আছে তবে টাকা থাকলেও হয়তো তাকে পছন্দ করে এমন লোকের সংখ্যা খুবই কম। সে কারণে তারা ভাবছেন মারা যাওয়ার পর তাদের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে শোক করার মতো তেমন কেওই থাকবে না। তখন ওই ব্যক্তি শরণাপন্ন হতে পারেন এইসব নারীদের কাছে। যাদের সংস্থার নাম ‘দ্য ফিউনেরাল কন্ট্রাকটরস অ্যাসোসিয়েশন’। এরা টাকার বিনিময়ে যে কোনো শবযাত্রায় কাঁদবেন ঘনিষ্ঠজনের মতোই! তারা শবযাত্রায় এমন সব মৃত মানুষের জন্য অঝোরে কাঁদেন যাদের সঙ্গে তাদের কোনো পরিচয় পর্যন্ত নেই!

জানা গেছে, স্বামী মারা যাওয়ার পর কয়েকজন বিধবা নারী মিলে ‘দ্য ফিউনেরাল কন্ট্রাকটরস অ্যাসোসিয়েশন’ নামে এই সংগঠনটি গড়ে তুলেছেন। একটা শবযাত্রায় তারা কতো পারিশ্রমিক নেবেন তা নির্ভর করে অনুষ্কঠানটি কত বড় হবে তার ওপর নির্ভর করে।

আবার কোনো মৃত ব্যক্তি যদি আগেই শর্ত দিয়ে থাকে তার শবযাত্রাটি উৎসবমুখর হবে তাহলেও এই সংগঠনের কোনো সমস্যা নেই। পারিশ্রমিক পেলে এই সংস্থার নারীরা শবযাত্রায় নাচ-গান করে সেই উৎসবও পালন করে থাকনে!

তবে একটি বিষয়ে সব সময়ই আফসোস থাকে, আর তাহলো যেই মৃত ব্যক্তিকে ঘিরে এতোকিছুর আয়োজন তিনি তা বুঝতেও পারবেন না যে তার জন্য এতোগুলো ব্যক্তি অঝোরে কাঁদছেন!

Advertisements
Loading...