The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ফিঙ্গারপ্রিন্টই বলে দেবে কে মাদকাসক্ত ব্যক্তি

মাদকাসক্ত ব্যক্তি সনাক্ত করতে এবার ব্যবহার করা হবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট প্রযুক্তি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মাদকাসক্ত ব্যক্তিদের সনাক্ত করতে নানা ধরনের টেস্ট করা বেশ সময় সাপেক্ষ ব্যাপার এবং তা যথেষ্ট ঝামেলাপূর্ণও বটে। এমন সমস্যা সমাধানে দ্রুত মাদকাসক্ত ব্যক্তি সনাক্ত করতে এবার ব্যবহার করা হবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট প্রযুক্তি। এমন কি মৃত ব্যক্তির শরীরেও এই পরীক্ষা সফল ভাবে কাজ করছে।

ফিঙ্গারপ্রিন্টই বলে দেবে কে মাদকাসক্ত ব্যক্তি 1

কোন ব্যক্তি যদি গাঁজা, কোকেন, অপিয়েট, অ্যামফেটামিনের মতো নিষিদ্ধ ইত্যাদি মাদকদ্রব্য সেবন করে থাকে, তবে ফিঙ্গারপ্রিন্টের মাধ্যমে খুব সহজেই এসব সেবনকারীদের সনাক্ত করা সম্ভব। এই পদ্ধতিতে সনাক্ত করতে সময় নেবে মাত্র ৫ সেকেন্ড। এই পদ্ধতির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ইন্টেলিজেন্ট ফিঙ্গারপ্রিন্ট রিডার’।ফলাফলের সঠিকতা রক্ত এবং মুত্র পরীক্ষার মতই সঠিক।

ব্রিটিশ কোম্পানি ইন্টেলিজেন্ট ফিঙ্গারপ্রিন্ট ডিভাইসটি তৈরি করেছে। মাদকদ্রব্য গ্রহণ করলে শরীরে ক্ষতিকারক মেটাবোলাইট তৈরি হয়। নতুন মেডিক্যাল পরীক্ষাটি আঙুলের ছাপে আটকে থাকা ঘাম থেকেই এই মেটাবোলাইট শনাক্ত করতে পারে। কেউ যখন কোকেন গ্রহণ করে তখন শারীরিক বেনজাইল ইগোনাইন এবং মিথাইল ইগোনাইন প্রক্রিয়ায় শরীরে ঘাম উৎপন্ন হয়।

ফিঙ্গারপ্রিন্টই বলে দেবে কে মাদকাসক্ত ব্যক্তি 2

মাদকাসক্ত নির্ণয়ে আঙুলের ছাপের এই পরীক্ষাটি বৈপ্লবিক অগ্রগতি নিয়ে আসতে পারে। এটি রক্ত, মূত্র এবং মুখের লালা পরীক্ষার তুলনায় অনেক বেশি স্বাস্থ্যকর ও নিরাপদ। রক্ত পরীক্ষা করার জন্য যে ধরনের প্রশিক্ষণ এবং জ্ঞানের প্রয়োজন পড়ে, এই আধুনিক ডিভাইসটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে সে লেভেলের প্রশিক্ষণের কোন প্রয়োজন নেই। মূত্র পরীক্ষার ক্ষেত্রে মূত্রের নমুনা সঠিক ব্যক্তিরটিরই কিনা অনেক সময় এমন সংশয় থাকে বা একটু এলোমেলো হয়ে গেলে পুরো রিপোর্ট ই পরিবর্তন হয়ে যায়। তখন ভুল রিপোর্ট সবার ধারনাকে অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিতে পারে। তবে নতুন ডিভাইসটি আঙুলের ছাপের নমুনার হওয়ায় এই জাতীয় ঝামেলা হওয়ার কোন উপায় নেই।

বিভিন্ন ক্ষেত্রে মাদকাসক্ত নির্ণয়ের পরীক্ষা আরো সঠিক এবং নির্ভুল করার জন্য বিভিন্ন জিনিসের প্রয়োজন হয়। কিন্তু এবার এই একটিমাত্র ডিভাইসের মাধ্যমেই মাদকাসক্ত ব্যক্তিদের নির্ণয় করা সম্ভব হবে। বিশেষ করে ভারী মেডিক্যাল সরঞ্জামের প্রয়োজন পড়ে এমন ক্ষেত্রেও পরীক্ষকরা ডিভাইসটির মাধ্যমে সহজেই কর্মীদের পরীক্ষা করতে পারবেন। এছাড়া মৃত মানুষের ওপর পরীক্ষার সক্ষমতায় মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে দ্রুত ধারণা পাওয়া যাবে। এর ফলে পুলিশি তদন্ত আরো সহজ এবং নির্ভুল হবে।

ছবি সংগ্রহ করা হয়েছে intelligentfingerprinting.com থেকে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...