The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

redporn sex videos porn movies black cock girl in blue bikini blowjobs in pov and wanks off.

‘ইসরাইলকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্যই মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন সেনা’

সৌদি সরকারের সমর্থন ছাড়া ইসরাইলকে এই অঞ্চল ত্যাগ করতে হতো বলে বক্তব্য দেওয়ার পর এই মন্তব্য করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, নিজের ঘনিষ্ঠ মিত্র ইহুদিবাদী ইসরাইলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্যই মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকার সৈন্য মোতায়েন থাকবে।

‘ইসরাইলকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্যই মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন সেনা’ 1

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, নিজের ঘনিষ্ঠ মিত্র ইহুদিবাদী ইসরাইলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্যই মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকার সৈন্য মোতায়েন থাকবে।

সৌদি সরকারের সমর্থন ছাড়া ইসরাইলকে এই অঞ্চল ত্যাগ করতে হতো বলে বক্তব্য দেওয়ার পর এই মন্তব্য করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমরা একটি পয়েন্টে এই সিদ্ধান্তে উপনিত হয়েছি যে মধ্যপ্রাচ্যে আমাদের উপস্থিতির কোনো প্রয়োজন নেই। তবে কেবলমাত্র ইসরাইলের স্বার্থে আমাদেরকে এখানে থাকবে হবে।’

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘তেল উৎপাদনের ইস্যুতে মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন সেনার উপস্থিতির কোনো প্রয়োজন নেই। কারণ হলো তেলের মূল্য কমতে থাকায় সৌদি আরবের ওপর আমাদের নির্ভরশীল হওয়ারও প্রয়োজন নেই।” ডোনাল্ড ট্রাম্প আরও বলেন, “তেলের ওপর নির্ভর করে মধ্যপ্রাচ্যে থাকার ভিত্তি দিন দিনই কমে যাচ্ছে। কারণ হলো আমরা আগের চেয়ে আরও অধিক পরিমাণে তেল উৎপাদন করছি।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত বৃহস্পতিবার ফ্লোরিডায় একই প্রসঙ্গে সৌদি সরকারের প্রতি তার সরকারের সমর্থনের যুক্তি দেখিয়ে বলেছিলেন, সৌদি সরকার আমাদের খুবই শক্তিশালী একজন মিত্র। এই সরকারের অনুপস্থিতিতে ইসরাইল বড় ধরনের সংকটের মধ্যে পড়বে।

সৌদি সরকার তেলের দর কমিয়ে রাখছে বলেও ডোনাল্ড ট্রাম্প উল্লেখ করেন। সৌদি সরকারের সঙ্গে সুসম্পর্ক হারালেই বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দেবে ও তেলের দর ব্যারেল প্রতি ৫০ ডলার করে বেড়ে যাবে। সৌদি সরকার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিপুল অংকের পুঁজি বিনিয়োগ করে রেখেছে বলেও ডোনাল্ড ট্রাম্প উল্লেখ করেন।

সব মিলিয়ে বোঝা যাচ্ছে ইহুদিবাদি রাষ্ট্র ইসরাইলকে রক্ষা করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মরিয়া। যে কোনো উপাতে ইসরাইলকে সমর্থন করে তাদের পাশে থাকার প্রয়োজনীয়তার উপর তাই ডোনাল্ড ট্রাম্প গুরুত্ব দিচ্ছেন। বিভিন্ন সময় বৈশ্বিক নানা ঘটনা সব সময়ই সেই ইঙ্গিত বহন করে। ফিলিস্তিনিদের উপর নানা নির্যাতন হলেও মার্কিন প্রশাসন যেনো নির্বিকার থাকে। এইসব নানা কাণ্ড পূর্ব থেকেই চলে আসছে। তবে সেগুলো আকারে-ইঙ্গিতে হলেও এবার সরাসরি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সরাসরি ইসরাইলকে রক্ষার কথা ব্যক্ত করলেন।

Loading...
sex không che
mms desi
wwwxxx