বিয়ে বাড়িতে দাওয়াতে আসা সবার চোখ বেঁধে দিলো বর! কিন্তু কেনো?

কোন-রড ডিসট্রফির কারণে স্টিফানি দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেন মাত্র ১৯ বছর বয়সে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বিয়ে বাড়িতে দাওয়াত খেতে আসা অতিথি সবার চোখ বেঁধে দিলো বর! কিন্তু কেনো এমন কাণ্ড? বিষয়টি জানলে আপনিও বিস্মিত হবেন।

এমন ঘটনা আমাদের সামনে সব সময় আসে না। কারণ পৃথিবীতে প্রতিদিন কতো কিই না ঘটে যাচ্ছে। কার খবর কে রাখে? এমনই একটি ঘটনার সূত্রপাত ঘটেছে অস্ট্রেলিয়ার মালেনিতে। তবে ঘটনাটি শুধু যে বিস্ময়ের তা নয়, মানবিক এক বিপর্যয়ও বটে।

অস্ট্রেলিয়ার মালেনিতে সম্প্রতি রোবি ক্যাম্পবেল নামে এক ব্যক্তি বিয়ে করেছেন স্টিফানি অ্যাগ্নিউকে। তবে বিয়ে হয়েছে, অনুষ্ঠান হচ্ছে সেটি একটি স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু যে কাণ্ডটি আগতরা দেখলেন তা দেখে সবাই হতবাক। বিয়ে বাড়িতে আসা ৫৪ জন অতিথির প্রত্যেকেরই চোখ বেঁধে দেওয়া হয়! বিষয়টি শুনে অনেকেই অবাক হবেন। তবে প্রথমে উপস্থিত সবাই অবাক হলেও পরক্ষণেই তাদের ভুল ভাঙ্গে।

কারণটি তাহলে কী? জানা যায়, রোবির সঙ্গে আলাপের সময়ই ঘটে যায় মারাত্মক একটি দুর্ঘটনা। কোন-রড ডিসট্রফির কারণে স্টিফানি দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেন মাত্র ১৯ বছর বয়সেই। কখনও ভালোবাসার মানুষটিকে চোখে দেখেননি তিনি। তখনই রোবি ভেবেছিলেন যে, অন্য কোনওভাবে ভালোবাসা উদযাপনের কথা। আর তখনই আসে তার মাথায় এক বুদ্ধি। তিনি সিদ্ধান্ত নেন তার বিয়েতে যারা অতিথি আসবেন তাদের চোখ বন্ধ রেখে বিয়ে অনুষ্ঠানটি তিনি উদযাপন করবেন।

এই বিষয়ে জেমস ডে নামে যে আলোকচিত্রী বিয়ের ছবিগুলো তুলেছেন তিনি জানান, রোবি বলেছেন যে, একটি ইন্দ্রিয় হারালে অন্য ইন্দ্রিয় যে আরও জোরাল হয়ে ওঠে তা অনুভব করতে চেয়েছিলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের প্রত্যেকের হাতে ফুলের বদলে তুলে দেওয়া হয় ব্লাইন্ডফোল্ড। স্টিফানির মাও একজন দৃষ্টিশক্তিহীন। তিনিও অভিভূত হন জামাইয়ের এই সিদ্ধান্তে।

স্টিফানি বলেন, এই মুহূর্তটি আসলে ভোলার নয়। তবে ভালোবাসার মানুষটি যে খুব লম্বা এবং সাদা মনের মানুষ তা তিনি জানেন। রোবি ৬ ফুট ৪ ইঞ্চি লম্বা ও স্টিফানির উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি।

রোবির রয়েছে চওড়া কাঁধ, অপরদিকে তার মুখটাও বেশ বুদ্ধিদীপ্ত, সংবাদ সংস্থাকে স্পষ্টভাবেই একথা বলেছেন স্টিফানি।

এই জীবনে প্রত্যেকটি মানুষেরই কিছু না কিছু না পাওয়া রয়ে যায়। তাই বলে ভেঙে পড়ার কিছু নেই। স্টিফানি রোবির হাতে হাত রেখে এমনটিই জানিয়েছেন। পরে আলোকচিত্রীর তোলা বিয়ের ছবিগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।

সত্যিই নজিরবিহীন এক ঘটনা এটি। এই দম্পতিকে এক সুখি দম্পতি বলা যাবে। সমাজের কাছে, পৃথিবীর কাছে এক দৃষ্টান্ত এই দম্পতি। চোখ নেই তাই কি হয়েছে, মন তো আছে। সেই মন দিয়েই দুনিয়া জয় করতে চান এই দম্পতি।

Advertisements
Loading...