The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

redporn sex videos porn movies black cock girl in blue bikini blowjobs in pov and wanks off.

অর্ধশতাধিক নারীকে খুন করে এক পুলিশ কর্মকর্তা!

সাইবেরিয়ার আঙ্কারাস্ক শহরকে দুশ্চরিত্র নারীদের কবল হতে ‘পবিত্র’ করার এক অভিযানে নেমেছিলেন তিনি!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ রক্ষক যদি ভক্ষক হয় তখন আর করার কিছুই থাকে না। এমনই এক পুলিশ কর্মকর্তার খোঁজ পাওয়া গেছে যিনি অর্ধশত নারীকে খুন করেছেন!

অর্ধশতাধিক নারীকে খুন করে এক পুলিশ কর্মকর্তা! 1

এমন একটি চাঞ্চল্যকর খবর পাওয়া গেছে রাশিয়াতে। দেশটির সাইবেরিয়া অঞ্চলের এক পুলিশ কর্মকর্তা একজন দুজন নয়; ৫৬ জন নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা করেছে। একটি কুড়াল ও হাতুড়ি দিয়ে এই হত্যাযজ্ঞ চালান এবং তাও ঠাণ্ডা মাথায়!

মিখাইল পপকভ নামে রাশিয়ার ৫৩ বছর বয়সী ওই পুলিশ কর্মকর্তা ১৯৯২ হতে ২০১০ সাল পর্যন্ত ৫৫ জন নারী ও একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে খুন করেছেন।

একের পর এক নারীকে খুনের কারণ হিসেবে এই সিরিয়াল কিলারের বক্তব্য হলো- সাইবেরিয়ার আঙ্কারাস্ক শহরকে দুশ্চরিত্র নারীদের কবল হতে ‘পবিত্র’ করার এক অভিযানে নেমেছিলেন তিনি!

রাশিয়ায় বিগত কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক মানুষকে হত্যা করা ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে দ্বিতীয় দফায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত।

২০১৫ সালে ২২ জনকে হত্যার দায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয় মিখাইল পপকভকে। তবে পরে প্রকাশিত হয় যে, তিনি অন্তত ৫৬ জনকে হত্যা করেছেন।

গভীর রাতে নারীদের গাড়িতে করে গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে তাদের হত্যা করতেন মিখাইল পপকভ। তার হাতে নিহত নারীদের বয়স ছিল ১৫ হতে ৪০ বছরের মধ্যে। অনেক সময় তিনি পুলিশের গাড়িও ব্যবহার করতেন।

মিখাইল পপকভ স্বীকার করেছেন যে, এইসব নারীদের মধ্যে অন্তত ১০ নারীকে হত্যার পূর্বে তিনি ধর্ষণও করেন। ২০১২ সালে একটি ডিএনএ পরীক্ষার পর পুলিশ তার গাড়ি শনাক্ত করতে সক্ষম হওয়ার পর তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সাইবেরিয়ার ইর্কুত্স্ক এলাকার কাছে আঙ্কারাস্ক শহরের আশপাশের নারীদের হত্যার পর তাদের খণ্ডবিখণ্ড দেহ বিভিন্ন জঙ্গলে, রাস্তার পাশে কিংবা স্থানীয় একটি সমাধিস্থলে ফেলে দিতেন মিখাইল পপকভ।

এমন কয়েকটি দেহের আশপাশে পপকভের ‘নিভা’ গাড়ির চাকার দাগও পাওয়া যায়। তদন্তকারীরা আশপাশের এলাকার সব নিভা গাড়ির মালিকের বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করলে শেষ পর্যন্ত ধরা পড়েন মিখাইল পপকভ।

মিখাইল পপকভ ধরা পড়ার পর প্রথমবার একপর্যায়ে ২০টি খুনের বিষয়ে স্বীকারোক্তি দেন পুলিশকে। তার হাতে খুন হওয়া সবচেয়ে কমবয়সী নারীর বয়স ছিল মাত্র ১৫ বছর।

মিখাইল পপকভের বিরুদ্ধে ২২ জনের মৃত্যুর অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার পর তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা দেন রাশিয়ার ইর্কুত্স্কের একটি আদালত। তবে অন্য হত্যাকাণ্ডগুলোর তদন্ত শুরু হওয়ায়কারাগারে না পাঠিয়ে এই কুখ্যাত খুনিকে পুলিশের হেফাজতেই রাখা হয়।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...
sex không che
mms desi
wwwxxx