The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

অন্যের মনের কথা শুনেই কোটিপতি!

মাঝ বয়সি এক ‘আঙ্কেল’-এর আয়োজন করেছেন জাপানের এক ব্যবসায়ী

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অন্যের মনের কথা শুনেই নাকি একব্যক্তি হয়েছে কোটিপতি! সে আবার কেমন ব্যবসা? এটি আবার কখনও হতে পারে নাকি? তবে সত্যিই এমন ঘটনা ঘটেছে বাস্তবে!

অন্যের মনের কথা শুনেই কোটিপতি! 1

অন্যের মনের কথা শুনেই নাকি একব্যক্তি হয়েছে কোটিপতি! সে আবার কেমন ব্যবসা? এটি আবার কখনও হতে পারে নাকি? তবে সত্যিই এমন ঘটনা ঘটেছে বাস্তবে!

অনেক সময়ই এমন হয় যে আমাদের কথা শোনার কেওই থাকে না কিংবা কথা বলার লোক খুঁজে পাওয়া যায় না। কারণ হলো প্রতিযোগিতার এই দুনিয়ায় সকলেই ভীষণভাবে ব্যস্ত সময় পার করে থাকেন।

আর সেই কারণেই মাঝ বয়সি এক ‘আঙ্কেল’-এর আয়োজন করেছেন জাপানের এক ব্যবসায়ী, তার নাম টাকানোবু নিশিমোটো। তিনি ২০১২ সালে অনলাইনে শুরু করেন এক বিশেষ পরিষেবা। যেখানে, এক ঘণ্টার জন্য যে কেও ইচ্ছে করলেই ‘ওস্সান’ ভাড়া করতে পারবেন। কেবলমাত্র তাদের মনের কথা শোনানোর জন্য। খরচ পড়বে বাংলাদেশী মুদ্রায় ৮০০ টাকার মতো। জাপানি শব্দ ‘ওস্সান’-র অর্থ হলো ‘আঙ্কেল’।

দেশটির জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ‘দ্য জাপানিজ টাইমস’-এর সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে টাকানোবু নিশিমোটো জানিয়েছেন যে, তার এই পরিষেবায় যেভাবে সর্বত্র সাড়া পেয়েছেন, তাতে তিনি অভিভূত হয়েছেন।

টাকানোবু নিশিমোটো আরও জানিয়েছেন যে, অনেক ক্ষেত্রে এমনও হয়েছে যে ওস্সান তার ক্লায়েন্টকে সাহায্য করেছেন বাড়ি বদল করতে। আবার কখনও কারও বয়ফ্রেন্ডও সেজেছেন।

তিনি জানিয়েছেন, প্রথম ৩ বছর টাকানোবু নিশিমোটো নিজেই ওস্সান সেজে ক্লায়েন্টদের সঙ্গে দেখা করেছেন। তার প্রথম ক্লায়েন্ট ছিলেন ৮৮ বছর বয়সী একজন বৃদ্ধা। যার সঙ্গে এখনও টাকানোবু দেখা করেন সপ্তাহে অন্তত একবার।

জাপানে ‘ওস্সান রেন্টাল’ এখন এতোটাই জনপ্রিয় যে টাকানোবু নিশিমোটো একা এই প্রতিষ্ঠানটি সামলাতে পারছেন না। যে কারণে তার এই পরিষেবাটিতে নিযুক্ত হচ্ছেন অনেকেই। তবে কাজে লাগানোর আগে তাদের সম্পর্কে খুঁটিয়ে খবর নেন। এবং ‘আঙ্কেল’ হওয়ার সর্বপ্রথম শর্তই হলো, চাকরিপ্রার্থীকে অবশ্যই মাঝ বয়সি হতে হবে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...