The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মোটা পুলিশদের ‘পিটিয়ে’ রোগা বানানো হয় যে গোপন ক্যাম্পে!

মোটা পুলিশকর্মী হলে অনেক রকম অসুবিধেও রয়েছে। তাদেরকে ধীরে হাঁটতে হয়, ধীরে কাজ করতে হয়। অনেক সময়ই দৌড়ে গিয়ে ক্রিমিনাল ধরতে নাজেহালও হতে হয় তাদেরকে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ থাইল্যান্ড পুলিশের এই বিশেষ পুলিশ শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন প্রায় ২০০ জন পুলিশকর্মী। এতে অনেক লাভবানও হয়েছেন তারা। ৮০ কেজি থেকে কমে অনেকেই হয়েছেন ৬০, অনেকে আবার ২০০ কেজি থেকে কমে হয়েছেন ১৪০ কেজির মতো!

মোটা পুলিশদের ‘পিটিয়ে’ রোগা বানানো হয় যে গোপন ক্যাম্পে! 1

আমরা জানি পুলিশের কাজের সঙ্গে ফিটনেসটা অত্যন্ত জরুরি। কারণ ঘণ্টার পর ঘণ্টা দৌড়ে চোর-ডাকাত ধরার পাশাপাশি তাদের কাজের ধরনটাই যেনো এমন। সে কারণে থাইল্যান্ডের পুলিশ ফোর্স নিজেদের কর্মীদের জন্য একটি বিশেষ ডায়েট ও ওয়ার্কআউট সেশনের বন্দোবস্ত করেছিলো।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে, ওবেসিটি আক্রান্ত পুলিশকর্মীদের জন্য পাক ছং শহরে দু-সপ্তাহের একটি বিশেষ ট্রেনিংয়ের আয়োজন করা হয়। অত্যধিক ওজন রয়েছে যে পুলিশকর্মীদের তাদের বাধ্যতামূলক করা হয় এই ট্রেনিং।

এক ট্রেনারের দাবি, ‘মোটা পুলিশকর্মী হলে অনেক রকম অসুবিধেও রয়েছে। তাদেরকে ধীরে হাঁটতে হয়, ধীরে কাজ করতে হয়। অনেক সময়ই দৌড়ে গিয়ে ক্রিমিনাল ধরতে নাজেহালও হতে হয় তাদেরকে।’

গোটা দেশের সব পুলিশ স্টেশন থেকে ২-৩ জন করে মোটা কর্মীকে যোগ দিতে বলা হয়েছিল এই শিবিরে। তবে অত্যধিক মোটা পুলিশকর্মীদের ফিল্ড ওয়ার্কের জায়গায় অফিসে বসে কাজের মঞ্জুরি দেওয়া হয়।

এভাবেই গোপনে এক ক্যাম্পের মাধ্যমে অনেক মোটা পুলিশের ফিটনেস ঠিক করা হয়।

Loading...