কোটা বাতিলের দাবিতে শাহবাগ অবরোধ করেছে ৩৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারিরা

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ ৩৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল পুনর্মূল্যায়নের দাবিতে রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করেছেন কয়েক’শ চাকরিপ্রার্থী। এতে শাহবাগ দিয়ে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। খবর বাংলাদেশ নিউজ২৪কমের।

34BCS

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কয়েক’শ চাকরিপ্রার্থী শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নিয়ে অবরোধ করেন। পরে আরও অনেক চাকরিপ্রার্থী ওই অবরোধে যোগ দেয়। অবরোধ এখনও চলছে। অবরোধের কারণে শাহবাগ মোড় দিয়ে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। অবরোধকারীরা জানিয়েছেন, দাবি মেনে না নেওয়া পর্যন্ত তাঁরা অবরোধ প্রত্যাহার করবেন না।

সাধারণ ক্যাডারের ৪৪২টি পদসহ মোট দুই হাজার ৫২টি পদে নিয়োগ দিতে গত ৭ ফেব্রুয়ারি ৩৪তম বিসিএসের বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়। দুই লাখ ২১ হাজার ৫৭৫ জন প্রার্থী এই পরীক্ষার জন্য অনলাইনে আবেদন করেন। গত ২৪ মে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এক লাখ ৯৫ হাজার পরীক্ষার্থী এতে অংশ নেন। গত সোমবার এই পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয় এবং মোট ১২ হাজার ৩৩ জন উত্তীর্ণ হন।

এত দিন প্রিলিমিনারি, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার পর চূড়ান্ত পর্যায়ে কোটা পদ্ধতি প্রয়োগ করা হতো। কিন্তু ৩৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পর্যায় থেকেই কোটা পদ্ধতি প্রয়োগ করা হয়েছে। এতে মেধাবীদের একটা বড় অংশ শুরুতেই সরকারি চাকরির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

চাকরিপ্রার্থীদের অভিযোগ, এর ফলে কম নম্বর পেয়েও অনেকে মুক্তিযোদ্ধা, আদিবাসী ও নারী কোটায় লিখিত পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত হয়ে যাবেন। আর অপেক্ষাকৃত বেশি নম্বর পেয়েও এই কোটার বাইরের অনেকে সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবেন।

পত্রিকায় পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে ক্ষুব্ধ প্রার্থীরা অভিযোগ করেন, তাঁদের যে বন্ধুরা মুক্তিযোদ্ধা ও আদিবাসী কোটায় আবেদন করেছেন তাঁরা ৬০ থেকে ৬৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন। আর মেধা কোটায় ৭৫ থেকে ৭৮ নম্বর পেয়েও উত্তীর্ণ হওয়া যায়নি।

তবে পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি) শিক্ষার্থীদের এই অভিযোগকে ভিত্তিহীন দাবি করে বলেছে, প্রিলিমিনারি থেকে এবার কোটা ঠিক করা হলেও মেধাবীরা কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন না বলে জানানো হয়েছে।

Advertisements
Loading...