The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এবার রাজধানী ঢাকার রাস্তায় দেখা গেলো জমজ গাড়ি!

রাজধানীর একটি সড়কে পাশাপাশি দুটি গাড়ির ছবি ফেসবুকে আপ করার পর হতেই তোলপাড় শুরু হয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এক কথায় বললে বলা যাবে সত্যিই বিস্ময়কর খবর। এমন কথা আগে কখনও শোনা যায়নি। কারণ মানুষ পাওয়া গেছে জমজ কিন্তু তাই বলে গাড়ি জমজ! তাই ঘটেছে এবার রাজধানী ঢাকার রাস্তায়। তবে ঘটনাটি সত্যি কি না তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এবার রাজধানী ঢাকার রাস্তায় দেখা গেলো জমজ গাড়ি! 1

রাজধানীর একটি সড়কে পাশাপাশি দুটি গাড়ির ছবি ফেসবুকে আপ করার পর হতেই তোলপাড় শুরু হয়েছে। একই মডেলের দুটি গাড়ি, নম্বর প্লেটও হুবহু একই রকম। এটা কীভাবে সম্ভব- রসে প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে অনলাইন মাধ্যমগুলো।

সত্যিকারের ছবি নাকি কারসাজি করা হয়েছে, এমন প্রশ্নও উঠেছে। তবে ছবি দেখে এটিকে কারসাজিও মনে হয় না। বিআরটিএও মনে করছে, ছবিটি ভুয়া না। তবে গাড়ি দুটির খোঁজে নেমেছে পুলিশ। অনুসন্ধানে নেমেছে শুল্ক গোয়েন্দারাও। বিষয়টি খতিয়ে দেখছে সড়ক পরিবহন নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিআরটিএ।

পুলিশ বলছে যে, একই মডেল এবং একই রঙের গাড়ি দুটি হতেই পারে। তবে নম্বরপ্লেট এক হওয়ার আইনত কোনো রকম সুযোগ থাকার কথা নয়। এটি যদি হয়ে থাকে তাহলে বিআরটিএর নিবন্ধন প্রক্রিয়াতেই রয়েছে ঘাপলা। হয়তো এভাবে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্বও হারাচ্ছে। আবার গাড়ির মালিকদের জন্যও এটি একটি সতর্কবার্তা হতে পারে। হয়তো একই নম্বরপ্লেটের দুটি গাড়ির একটি ব্যবহার হচ্ছে কোনো অবৈধ কাজে। তাতে করে ফেঁসে যেতে পারেন নিরপরাধ অপরজন।

টয়োটার এই মডেলের কারের ছবিটা আরেকটা গাড়ির ভেতর থেকে তোলা হয়েছে। ছবিতে গাড়ি দুটির নম্বর প্লেটেই লেখা রয়েছে ঢাকা মেট্রো-গ ৪২-৪৬১৮।

রুহুল আমিন রিপন নামে জনৈক ব্যক্তি এই ছবিটি পোস্ট করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন যে, ‘এই ছবিটা নিয়ে অনেক আলোচনা হচ্ছে। আমিও বিভ্রান্ত হয়েছি। তবে অরিজিনাল হিসেবে বিশ্বাস করি। কারণ এই ছবিটা প্রথম ফেসবুক শেয়ার করেন বাম মতাদর্শের একজন এক্টিভিস্ট। মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় এই ছবিটি। ছবিটির বিষয়ে বিস্তারিত জানার জন্য ওনার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করি। কিন্তু উনি কোন সাড়াই দেননি। তবে কমেন্টে তিনি দাবি করেছেন, ছবিটা অরিজিনাল।’

এই বিষয়ে জানতে চাইলে বিআরটিএর একজন সহকারী পরিচালক সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘হয় ছবিটি ভুয়া, নয় মালিকপক্ষ একই নম্বরে দুটি গাড়ি চালাচ্ছেন।’

ওই কর্মকর্তা আরও জানান, গত ৩ মার্চ এই গাড়িটির রেজিস্ট্রেশন হয়েছে। এখনও ডিজিটাল নম্বর প্লেট নেয়নি মালিকপক্ষ। সে কারণে আরেকটি নম্বরপ্লেট বানিয়ে অন্য একটি গাড়িতে লাগানো অসম্ভব কিছু নয়। এই বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধানের জন্র গাড়ির মালিককে তলব করা হয়েছে।

Loading...