The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিয়ের আসরে দেরিতে পৌঁছালেই জরিমানা দিতে হয় যে দেশে!

বর মেয়ের বাড়িতে পৌঁছাতে দেরি করলেই প্রতি মিনিট দেরির জন্য বরকে ১০০ রুপি করে জরিমানা গুনতে হয়!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সত্যিই এক আজব দেশ বলা যায়। কারণ বিয়ের অনুষ্ঠানে বর যখন খুশি আসেন সেটিই স্বাভাবিক নিয়ম। কিন্তু এমন এক দেশের খবর পাওয়া গেছে যে দেশে বিয়ের আসরে দেরিতে পৌঁছালেই জরিমানা গুনতে হয়!

বিয়ের আসরে দেরিতে পৌঁছালেই জরিমানা দিতে হয় যে দেশে! 1

সত্যিই এক আজব দেশ বলা যায়। কারণ বিয়ের অনুষ্ঠানে বর যখন খুশি আসেন সেটিই স্বাভাবিক নিয়ম। কিন্তু এমন এক দেশের খবর পাওয়া গেছে যে দেশে বিয়ের আসরে দেরিতে পৌঁছালেই জরিমানা গুনতে হয়!

বিয়ের আসরে ‘বর’কে মাথার উপর তুলে রাখাই আমাদের দেশের প্রধান রীতি। বর যখন খুশি তখন আসেন সেটিই আমাদের দেশের নিয়ম। তাছাড়া মেয়ে জামাইরতো সাত খুন মাফ হয়ে যায় সব সময়, আর সেটি যদি হয় বিয়ের আসরের মতো বড় কোনো আসরে তাহলে ‘বর’ তো সেখানে ঈশ্বরতুল্য। সেই বরকে কিছু বলে কার সাধ্যি আছে!

তবে এই চিরদিনের রীতির উল্টোও আছে। এমন একটি ভিন্ন চিত্র দেখা গিয়েছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের রামপুরের টঙ্কপুরি টান্ডা এলাকাতে। সেখানে বিয়ের আসরে বর মেয়ের বাড়িতে পৌঁছাতে দেরি করলেই প্রতি মিনিট দেরির জন্য বরকে ১০০ রুপি করে জরিমানা গুনতে হয়! হয়তো আপনি অবাক হচ্ছে কিন্তু অবাক হওয়ার কিছুই নেই। বরং এটিই টান্ডা এলাকার এক রীতি।

এই রীতির বিরুদ্ধে অনেকেই অনেক কিছু বললেও সবার মতামতের ভিত্তিতেই এই নিয়ম পালন করে আসছেন ওই গ্রামবাসীরা। তারা জানিয়েছেন, এই নিয়মটি কোনো পঞ্চায়েতের নির্দেশ হয় না। তবু দীর্ঘদিন ধরেই তারা পালন করে আসছেন এমন একটি রীতি।

শুধু দেরিতে আসায় নয়- বিয়ের আসরে এমনি আরও কয়েকটি অদ্ভুত নিয়ম তারা দীর্ঘদিন যাবত মেনে চলছেন বলে জানিয়েছেন তারা। ওই গ্রামের গ্রামবাসীদের মতে, বর ও কনে তাদের গ্রামের ভেতরের হওয়াও বাঞ্ছনীয়। অন্য এলাকা বা অন্য গ্রামের পাত্র-পাত্রীর সঙ্গে তাদের গ্রামের পাত্র-পাত্রীর বিয়ে তারা মোটেও পছন্দ করেন না। যদিও কদাচিত দু’একটি ঘটে থাকে। তবে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই গ্রামের ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে তাদের বিয়ের আয়োজন করা হয়ে থাকে। আর তাই রীতি মানতেও কেও কার্পণ্য করেন না। অন্য গ্রাম থেকে বর এলে তো এই নিয়ম নিয়ে বেশ সমস্যার সম্মুখিন হতে হবে তাই তারা এমন একটি নিয়ম করে রেখেছেন যে নিজেদের গ্রামের পাত্র-পাত্রীর বিয়ে হবে।

Loading...