The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নেপথ্যে ইমরান খানের ভূমিকার কারণে বরফ গলছে সৌদি-ইরানের মধ্যে

সৌদি আরব ও ইরানের মত-পার্থক্য দূর করতে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নয়, বরং সহায়তাকারীর ভূমিকা পালন করতে পাকিস্তান প্রস্তুত রয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আলোচনার মাধ্যমে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ দুই মুসলিম দেশ সৌদি আরব ও ইরানের মত-পার্থক্য দূর করতে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নয়, বরং সহায়তাকারীর ভূমিকা পালন করতে পাকিস্তান প্রস্তুত রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

নেপথ্যে ইমরান খানের ভূমিকার কারণে বরফ গলছে সৌদি-ইরানের মধ্যে 1

আলোচনার মাধ্যমে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ দুই মুসলিম দেশ সৌদি আরব ও ইরানের মত-পার্থক্য দূর করতে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নয়, বরং সহায়তাকারীর ভূমিকা পালন করতে পাকিস্তান প্রস্তুত রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

রবিবার একদিনের সফরে তেহরানে গিয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে অংশ নিয়ে তিনি এই প্রস্তাবটি দেন। ইমরান খান বলেন, অতীতে সৌদি আরব ও ইরানকে আলোচনাতে বসিয়েছিল পাকিস্তান। আবারও তাদের পার্থক্য নিরসনে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ এই দুই দেশকে ইসলামাবাদে বসাতে সহায়তা করবে তার দেশ পাকিস্তান।

পাকিস্তানের এই প্রধানমন্ত্রী এই বিষয়ে বলেন, এই ইস্যুটি জটিল একটি ইস্যু। তবে আলোচনার মাধ্যমে সেই সঙ্কটের সমাধান করা সম্ভব। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, তিনি তেহরান ও রিয়াদের এই কাজে সহায়তাকারী হিসেবে ভূমিকা পালন করতে চান, মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নয়।

তিনি আরও বলেন, ইরান ও সৌদি আরবের মধ্যে কখনই যুদ্ধ হবে না। পাকিস্তান এই অঞ্চলে কোনো ধরনের সংঘাতও চায় না।

‘ইরানের এই সফর ও আমি আগামী মঙ্গলবার সৌদি আরবে যে সফর করবো; সেটি পাকিস্তান নেতৃত্বাধীন একটি উদ্যোগ গ্রহন। আমি একটি ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে সৌদি আরব সফরে যাবো ও পাকিস্তান একজন সহায়তাকারীর ভূমিকায় পালন করবে।’

সৌদি আরব ও ইরানের মধ্রে ইসলামাবাদে সংলাপ আয়োজনে পাকিস্তান প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন ইমরান খান। পাকিস্তানের এই প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমি যখন নিউইয়র্কে ছিলাম, তখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই সংলাপ আয়োজনে সহায়তা করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছিলেন এবং আমরা সাধ্যের সবটুকুই করবো। আমরা ইরানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার এবং একটি পারমাণবিক চুক্তি যাতে স্বাক্ষরিত হয় সেজন্য সহায়তাও করবো।

সংবাদ সম্মেলনে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি আরও বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে বলেছি যে, এই অঞ্চলের শান্তির জন্য পাকিস্তানের যে কোনো ধরনের উদ্যোগকে স্বাগত জানায় ইরান। আমাদের দেশে তার সফরকেও শ্রদ্ধা জানাই। ইয়েমেন যুদ্ধ এবং ইরানের ওপর আরোপিত মার্কিন নিষেধাজ্ঞা-সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে এই দুই নেতা আলোচনা করেছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...