The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

‘পশ্চিম এশিয়ায় মোতায়েন মার্কিন সেনাদের স্ত্রী-সন্তানদেরকে স্বামী বা বাবার মৃত্যুর আশঙ্কায় প্রহর গুণতে হবে।’ -সোলাইমানির মেয়ে

জেইনাব সোলাইমানি বলেছেন যে, ‘ট্রাম্প, তুমি ভেবো না বাবার শাহাদাতেই সব কিছু শেষ হয়ে গেছে।’

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ইরানের বিশেষ বাহিনী রেভ্যুলিউশনারি গার্ডস কর্পসের (আইআরজিসি) অভিজাত শাখা কুদস ফোর্সের নিহত প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানির মেয়ে বাবার হত্যাকাণ্ড নিয়ে এক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। রবিবার তেহরানে বাবার জানাজায় অংশ নিয়ে এমন মন্তব্য করে মার্কিন বিমান হামলায় নিহত ইরানি জেনারেলের মেয়ে জেইনাব সোলাইমানি বলেছেন যে, ‘ট্রাম্প, তুমি ভেবো না বাবার শাহাদাতেই সব কিছু শেষ হয়ে গেছে।’

‘পশ্চিম এশিয়ায় মোতায়েন মার্কিন সেনাদের স্ত্রী-সন্তানদেরকে স্বামী বা বাবার মৃত্যুর আশঙ্কায় প্রহর গুণতে হবে।’ -সোলাইমানির মেয়ে 1

ইরানের বিশেষ বাহিনী রেভ্যুলিউশনারি গার্ডস কর্পসের (আইআরজিসি) অভিজাত শাখা কুদস ফোর্সের নিহত প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানির মেয়ে বাবার হত্যাকাণ্ড নিয়ে এক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। রবিবার তেহরানে বাবার জানাজায় অংশ নিয়ে এমন মন্তব্য করে মার্কিন বিমান হামলায় নিহত ইরানি জেনারেলের মেয়ে জেইনাব সোলাইমানি বলেছেন যে, ‘ট্রাম্প, তুমি ভেবো না বাবার শাহাদাতেই সব কিছু শেষ হয়ে গেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমেরিকা ও ইহুদিবাদী ইসরাইল জেনে রাখো বাবার শাহাদাতের ফলে গোটা বিশ্বের প্রতিরোধ ফ্রন্টের মধ্যে মানবিকতা আরও বেশি করে জাগ্রত হবে। এখন থেকে পশ্চিম এশিয়ায় মোতায়েন মার্কিন সেনাদের স্ত্রী-সন্তানদেরকে তাদের স্বামী বা বাবার মৃত্যুর আশঙ্কায় প্রহর গুণতে হবে।’

জেইনাব সোলাইমানি বলেছেন যে, ‘গোটা বিশ্ব দেখছে ইরাক এবং ইরানের মানুষ কীভাবে তাদের বীরের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছে। ট্রাম্প ইরানি এবং ইরাকি জাতির মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করতে চেয়েছিলেন, তবে এই শাহাদাতের ঘটনা দুই জাতির মধ্যে বন্ধনকে আরও যেনো শক্তিশালী করেছে, তারা চিরস্থায়ী বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। আমার বাবার মৃত্যু আমেরিকা এবং ইসরাইলের জন্য অন্ধকার দিন নিয়ে এসেছে।’

ইতিপূর্বে এক টিভি সাক্ষাৎকারে জেইনাব বলেছেন, তিনি নিশ্চিত যে লেবাননের হিজবুল্লাহ মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহও (সোলাইমানি) হত্যার প্রতিশোধ নেবেন।

উল্লেখ্য যে, ৩ জানুয়ারি ভোরে ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিকটে মার্কিন রকেট হামলায় নিহত হন ইরানের বিশেষ বাহিনী রেভ্যুলিউশনারি গার্ডস কর্পসের (আইআরজিসি) অভিজাত শাখা কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি। তার মরদেহ শনিবার বিকালে ইরাক হতে তেহরানে পৌঁছায়। আজ (মঙ্গলবার) সর্বশেষ জানাজার পর নিজ প্রদেশ ইরানের কেরমানে তাকে দাফন করা হবে। এদিকে সোলাইমানি নিহত হওয়ার ঘটনায় সারা বিশ্ব জুড়ে সমালোচনার ঝড় বইছে। সারা বিশ্ব তৃতীয় বিশ্ব যুদ্ধের দামামার আশংকা করছে। বিশ্বজুড়ে অর্থনীতির উপর এর ব্যাপক প্রভাবও পড়েছে।

Loading...