The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

থাইল্যান্ডে সেনা সদস্যের নির্বিচারে হত্যা ঘটনার আসল কারণ কী?

অস্ত্রাগার লুট করার সময় জাক্রাপান্থ অস্ত্রাগারের রক্ষীর ওপরও তিনি হামলা চালান। ওই রক্ষী পরে মারা গেছেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সারা বিশ্ব দেখলো একজন সেনা কর্মকর্তা কিভাবে হত্যা করলো একে এক ২৭ জনকে। সত্যিই বিস্ময়ক ঘটনার মতোই ঘটনা। একজন মানুষ কিভাবে এমন নির্মম হত্যাকাণ্ড ঘটাতে পারে? কমান্ডিং অফিসার কর্নেল অনন্তরথ ক্রাসে এবং তার শাশুড়িকে হত্যার পর অস্ত্রাগার লুট করেন ৩২ বছর বয়সী ওই বিপথগামি সেনা সদস্য জাক্রাপান্থ। পরে শহরের কেন্দ্রস্থলে টার্মিনাল টোয়েন্টিওয়ানে গিয়ে তিনি শুরু করে দেন তার তাণ্ডব। রাজধানী ব্যাংকক থেকে ২৫০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে নাখন রাচসিমা শহরের নিকটে সেনাবাহিনীর একটি ঘাঁটিতে ওই বিপথগামি সেনা সদস্য জাক্রাপান্থ কর্পোরাল পদে কর্মরত ছিলেন।

থাইল্যান্ডে সেনা সদস্যের নির্বিচারে হত্যা ঘটনার আসল কারণ কী? 1

সারা বিশ্ব দেখলো একজন সেনা কর্মকর্তা কিভাবে হত্যা করলো একে এক ২৭ জনকে। সত্যিই বিস্ময়ক ঘটনার মতোই ঘটনা। একজন মানুষ কিভাবে এমন নির্মম হত্যাকাণ্ড ঘটাতে পারে? কমান্ডিং অফিসার কর্নেল অনন্তরথ ক্রাসে এবং তার শাশুড়িকে হত্যার পর অস্ত্রাগার লুট করেন ৩২ বছর বয়সী ওই বিপথগামি সেনা সদস্য জাক্রাপান্থ। পরে শহরের কেন্দ্রস্থলে টার্মিনাল টোয়েন্টিওয়ানে গিয়ে তিনি শুরু করে দেন তার তাণ্ডব। রাজধানী ব্যাংকক থেকে ২৫০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে নাখন রাচসিমা শহরের নিকটে সেনাবাহিনীর একটি ঘাঁটিতে ওই বিপথগামি সেনা সদস্য জাক্রাপান্থ কর্পোরাল পদে কর্মরত ছিলেন।

রবিবার সকালে পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার পূর্বে প্রায় ২৬ জনকে গুলি চালিয়ে হত্যা করেন জাক্রাপান্থ, তার গুলিতে আহত হয় অর্ধশতাধিক মানুষ।

আহতদের দেখতে রবিবার সকালে নাখন রাচসিমার একটি হাসপাতালে যান থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান ওচা। পরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, জাক্রাপান্থ থম্মা ওই ঘটনা ঘটিয়েছেন বাড়ি বিক্রির চুক্তি নিয়ে ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বের কারণে। যার সঙ্গে তার ওই দ্বন্দ্ব, তিনি জাক্রাপান্থের কমান্ডিং অফিসারের একজন আত্মীয়।

থাই সেনাবাহিনীর সেকেন্ড এরিয়া কমান্ডের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল থানিয়া কিয়াতসারন জানিয়েছেন, অস্ত্রাগার লুট করার সময় জাক্রাপান্থ অস্ত্রাগারের রক্ষীর ওপরও তিনি হামলা চালান। ওই রক্ষী পরে মারা গেছেন। সেখান থেকে একটি এইচকে৩৩ অ্যাসল্ট রাইফেল, প্রচুর গুলি ও একটি হামভি গাড়ি নিয়ে ওই সেনা সদস্য জাক্রাপান্থ বেরিয়ে পড়েন।

থাইল্যান্ডের সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, অস্ত্রের ব্যাপারে জাক্রাপান্থের ছিল ভিষণ আগ্রহ। বিভিন্ন সময় তিনি সোশাল মিডিয়ায় অস্ত্র হাতে নিজের ছবিও পোস্ট করতেন। অস্ত্র চালনায় জাক্রাপান্থ ছিলেন একজন দক্ষ সৈনিক।

Loading...