The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

করোনায় দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন করে আক্রান্ত ১৬১: মৃত ৭

চীনের প্রতিবেশী দেশ দক্ষিণ কোরিয়ায় করোনা ভাইরাস বেশ আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ চীনের পর বেশি সংখ্যক মানুষের শরীরের করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে দক্ষিণ কোরিয়ায়। যে কারণে দেশটির জনগণের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। সেখানে নতুন করে আক্রান্ত ১৬১ এবং মোট মৃতের সংখ্যা ৭।

করোনায় দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন করে আক্রান্ত ১৬১: মৃত ৭ 1

চীনের প্রতিবেশী দেশ দক্ষিণ কোরিয়ায় করোনা ভাইরাস বেশ আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। সেখানে নতুন করে আরও ১৬১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৬৩ জনে।

আজ (সোমবার) দেশটির কর্মকর্তারা এই ভাইরাসে আরও দুইজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন এবং দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৭ জনে দাঁড়িয়েছে।

এর পূর্বে গতকাল (রবিবার) করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও আরও বেশি মৃত্যুর বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন কর্তৃপক্ষকে এই প্রাদুর্ভাবের বিস্তার রোধে ‘অভূতপূর্ব এবং শক্তিশালী’ পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন।

চীনের মূল ভূখণ্ডের পর সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে ইরানেও। দেশটিতে এ পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যু ঘটেছে। রবিবার নতুন ১৫ জনসহ দেশটিতে এখন করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪৩।

চীন থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে ইরানে ৮ জনের মৃত্যু এবং ৪৩ জন সংক্রমিত হওয়ার পর মহামারি আতঙ্কে প্রতিবেশী তিন দেশ-আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও তুরস্ক, ইরানের সঙ্গে তাদের সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে ইতালিতে আরও একজনের মৃত্যু ঘটেছে। এই নিয়ে দেশটিতে মোট তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। সর্বশেষ ২৩ ফেব্রুয়ারি মিলানের লোম্বারদিয়া অঞ্চলের ক্রেমনা প্রভিন্সে এক নারীর মৃত্যু ঘটে।

ইতালির গণমাধ্যম জানিয়েছে যে, এই পর্যন্ত দেশটিতে করোনা ভাইরাসে প্রায় ১৫০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। যার মধ্যে লোম্বারদিয়া অঞ্চলে ১১২ জন, ভেনেতো অঞ্চলে ২৫ জন, পিওমন্তে অঞ্চলে ৬ জন, লাছছিও অঞ্চলে ২ জন এবং এমিলা রোমানিয়া অঞ্চলে ৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। লোম্বারদিয়া অঞ্চলে দুজন ও ভেনেতো অঞ্চলে একজনের মৃত্যু ঘটেছে করোনা ভাইরাসে।

চীনের পরই দক্ষিণ কোরিয়ায় সবচেয়ে বেশি মানুষ প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন। চীনে এখন আক্রান্তের সংখ্যা ৭৭ হাজারেরও বেশি। এছাড়াও জাপানে ডায়মন্ড প্রিন্সেস নামে এক প্রমোদতরীতে শত শত যাত্রী আক্রান্ত হওয়ার পর সেখানেও ৬ শতাধিক মানুষ চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় শহর দায়েগুর এক ধর্মীয় গোষ্ঠী ও একটি হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট আরও অনেকেই ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হতে পারেন বলে আশঙ্কা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের।

উল্লেখ্য, গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী শহর উহান হতে প্রথমবারের মতো ধরা পড়ে নভেল করোনা ভাইরাস। এখন পর্যন্ত বিশ্বের অন্তত ৩০টি দেশে এই প্রাণঘাতি ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে। উহানের একটি সামুদ্রিক খাবারের বাজার হতে এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বলে ধারণা করা হয়ে থাকে।

চীনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে এ পর্যন্ত আড়াই হাজার দাঁড়িয়েছে। যার মধ্যে শুধু চীনের মূল ভূখণ্ডেই মারা গেছেন ২ হাজার ৪৬৫ জন। চীনসহ বিশ্বব্যাপী এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৮ হাজার।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...