The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

করোনা আতঙ্কে চীনা নাপিতরা ৪ ফুট লম্বা স্টিক দিয়ে চুল কাটছেন!

স্টাইলিস্ট কিংবা নরসুন্দররাও থাকছেন সর্বোচ্চতম সতর্কতায়

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ করোনা ভাইরাস আতঙ্কে চীন পরিণত হয়েছিলো ভুতুড়ে এক দেশে। মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমণের এই ভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে একান্ত প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে কেও বের হচ্ছিলো না।

করোনা আতঙ্কে চীনা নাপিতরা ৪ ফুট লম্বা স্টিক দিয়ে চুল কাটছেন! 1

এমন এক পরিস্থিতিতে বন্ধ অনেক সেলুন বা হেয়ার স্টাইল পার্লার। তারপরও যে ক’টি সেলুন কিংবা হেয়ার স্টাইল পার্লার খোলা রয়েছে, সেখানকার স্টাইলিস্ট কিংবা নরসুন্দররাও থাকছেন সর্বোচ্চতম সতর্কতায়। তবে সতর্কতার নতুন এক মাত্রা দেখা গেছে কিছু কিছু সেলুনে।

সংবাদ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া কিছু ছবি এবং ভিডিওতে দেখা গেছে যে, মাস্ক পরিহিত নরসুন্দররা কাস্টমার কিংবা গ্রাহকের চুল কাটছেন অন্তত ৪ ফুট লম্বা বিশেষ স্টিকের সাহায্যে!

অর্থাৎ ওই স্টিকে চিরুনি ও শেভার বা ছাঁটাইযন্ত্র গেঁথে নরসুন্দররা দূর থেকেই বিশেষ পদ্ধতিতে কাস্টমারের ছুল ছেঁটে কিংবা স্টাইল করে দিচ্ছেন। হেয়ারড্রাই বা ব্রাশ করার ক্ষেত্রেও একই পদ্ধতি অনুসরণ করতে দেখা যায় ওইসব নরসুন্দরদের। এই সময় অবশ্য কাস্টমারদের মুখেও মাস্ক দেখা গেছে।

যদিও সরাসরি হাতে চুল ছাঁটা কিংবা স্টাইল করার মতো নিখুঁত হচ্ছিল না এই কাজটি। তবে নিরাপত্তার স্বার্থেই এই পদ্ধতির ছুল ছাঁটাইয়েও অখুশি নন কাস্টমাররা।

এই অভিনব কৌশল সম্পর্কে চীনের মধ্যাঞ্চলের হুনান প্রদেশের একটি সেলুনের মালিক উ জুনলং সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, আপনি হাতে যেভাবে কাজ করতে পারবেন, এভাবে নিশ্চয়ই তা পারবেন না। তবে এটা নিশ্চয়ই আমাদের এবং কাস্টমারদের জন্য নিরাপদ একটি বিষয়।

ক’দিন পূর্বে দক্ষিণ-পশ্চিমের প্রদেশ সিচুয়ানের একটি সেলুনে ‘লং-ডিস্ট্যান্স হেয়ারকাট’র ছবি তুলে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন হে বিং নামে জনৈক হেয়ারস্টাইলিস্ট। তিনি তাতে লেখেন যে, ‘আমাদের সুরক্ষিত থাকতে হলে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতেই হবে।’

গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর হতে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে এ পর্যন্ত ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে শুধু মাত্র চীনে।এছাড়াও এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বর্তমানে সব মিলিয়ে প্রায় ৪ লাখ মানুষ।

ভয়াবহ এই ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে চীনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তাদের নাগরিকদের সর্বনিম্ন দেড় মিটার (প্রায় ৫ ফিট দূরত্ব) দূরত্বে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নেওয়ায় অনেক দেশই চীনা এমনকি বিদেশি নাগরিকদের আগমনে কড়াকড়ি আরোপও করে। এমনকি ওমরাহ পালনও সাময়িক নিষিদ্ধ করে সৌদি আরব। বর্তমানে এই রোগটি ইতালি, স্পেনসহ বিশ্বের ১৯৯টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক উপরের নিয়মে ধুয়ে ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...