The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মৌমিতা মৌ দাঁড়ালেন অসহায় মানুষদের পাশে

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে বাংলাদেশেও বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি অফিসসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পুরো ঢাকা শহর ফাঁকা

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী বিস্তার লাভ করেছে। বাংলাদেশেও আঘাত হেনেছে প্রাণঘাতি এই ভাইরাসটি। বিনোদন জগতের অনেকেই এগিয়ে এসেছেন সাধারণ মানুষের পাশে। এবার মৌমিতা মৌ দাঁড়ালেন অসহায় মানুষদের পাশে।

মৌমিতা মৌ দাঁড়ালেন অসহায় মানুষদের পাশে 1

বিশ্বের প্রায় শতাধিক দেশ ও অঞ্চল লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে বাংলাদেশেও বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি অফিসসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পুরো ঢাকা শহর ফাঁকা।

এমন অবস্থায় জীবিকা নির্বাহ প্রায় দুর্বিষহ হয়ে পড়েছে খেটে খাওয়া অসহায় ও সাধারণ মানুষদের জন্য। সমাজের প্রতিষ্ঠিত ও উচ্চবিত্তদের উচিত এসব অসহায় মানুষদের পাশে গিয়ে দাঁড়ানো। তাই এদের সাহায্যে এগিয়ে আসছেন অনেক তারকারা। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকা মৌমিতা মৌ।

গত ২৯ মার্চ সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমন্ডি ও তার আশে-পাশের বেশ কিছু এলাকাতে অসহায় মানুষদের মাঝে খাবার বিতরণ করেন বর্তমান সময়ের এই নায়িকা মৌমিতা মৌ। খাবারের প্যাকেটে ছিল চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ, লবণ, তেল ও সাবান।

এই বিষয়ে মৌমিতা বলেন, নিজ তাগিদ হতেই রাস্তায় নেমেছি। আমরা যারা সার্বিকভাবে নিরাপদে এবং প্রতিষ্ঠিত আছি তাদের দায়িত্ব অসহায় মানুষদের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়া। আমি নিয়মিত সহায়তা করার চেষ্টা করবো। তাছাড়াও অনুরোধ করছি যাদের সামর্থ্য রয়েছে তারাও যেনো সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। এই শহরে অনেক মানুষ আছেন যারা অসহায় মানুষদের দায়িত্ব নেওয়ার সামর্থ্যও রাখেন। তারা যদি এই দায়িত্বটুকু হাতে তুলে নেন এতে কেও না খেয়ে থাকবে না, কেও ঝুঁকিতে থাকবে না।

তিনি আরও বলেন, করোনার প্রভাবে এই দুর্দিনে সকলকে সচেতন থাকতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া বাসার বাইরে না যাওয়াই ভালো। সবাইকে হ্যান্ড গ্ল্যাভস, মাস্ক পরিধান করতে হবে এবং নিয়মিত সাবান বা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে ভালো করে হাত ধোয়া বেশ জরুরি।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...