The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

আসল কিম কী মৃত? তাহলে কী প্রকাশ্যে এসেছিল নকল কিম!

মে দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে যখন কিম উদ্বোধন করেন তখন সে দেশের সরকারি টিভি চ্যানেলের পর্দায় ভেসে উঠে সেই দৃশ্য

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ দীর্ঘ জল্পনার পর অবশেষে মে দিবস উপলক্ষে প্রকাশ্যে আসেন উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন। উদ্বোধন করেন একটি সার কারখানার। কিন্তু প্রশ্ন দেখা দিয়েছে আসল নকল নিয়ে। এসেছিলেন কী নকল কিম?

আসল কিম কী মৃত? তাহলে কী প্রকাশ্যে এসেছিল নকল কিম! 1

মে দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে যখন কিম উদ্বোধন করেন তখন সে দেশের সরকারি টিভি চ্যানেলের পর্দায় ভেসে উঠে সেই দৃশ্য। তবে প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে অজ্ঞাতবাসে থাকার পর কিম জং উনের হঠাৎ করে প্রকাশ্যে আসা নিয়েও উঠেছে নানা প্রশ্ন।

এমন প্রশ্নের মধ্যেই বিস্ফোরক দাবি করেছেন এক চীনা ব্লগার। সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে ব্লগার জেনিফার জেং দাবি করেছেন যে, ‘কিম জং উনের নাকি তার বডি ডাবল!’ অর্থাৎ, ওইদিন কিমের মতোই দেখতে একজনকে তার জায়গায় উপস্থাপন করা হয়েছে। এমনকী দাবির স্বপক্ষে কিছু ছবি পোস্ট করে প্রমাণও দিয়েছেন ওই ব্লগার।

উল্লেখ্য, কিম জং উনের বডি ডাবলের খবর ইতিপূর্বেও প্রকাশ্যে এসেছে। যদিও ওই চীনা ব্লগারের মন্তব্য নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি পিয়ংইয়ং। এই বিষয়ে অবশ্য মন্তব্য করেনি দক্ষিণ কোরিয়াও। উল্লেখযোগ্য যে, কিমের অজ্ঞাতবাসের সময়ই ৫০ জনের একটি প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছিল চীন। তবে সেই প্রসঙ্গে পরবর্তীতে কোনও রিপোর্টই পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য যে, দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদমাধ্যম সূত্রে দাবি করা হয় যে, অত্যধিক ধূমপান, স্থূলতা-সহ বেশ কিছু সমস্যা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই নানা সমস্যায় ভুগছিলেন কিম জং উন। তার উপর ছিল মাত্রাতিরিক্ত কাজের চাপও। এর জেরেই হৃদযন্ত্রে অস্ত্রোপচার এবং তারপর থেকেই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন কিম জং উন। আরও একাধিক সংবাদ মাধ্যমে উত্তর কোরিয়ার শাসকের ‘সংকটজনক অবস্থা’ নিয়েও খবর প্রকাশিত হয়।

তথ্যসূত্র: deshebideshe.com

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...