The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিয়ের গয়নার তালিকায় এবার রূপার মাস্ক!

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যেও থেমে নেই বিয়ের অনুষ্ঠান

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ নতুন একটি গহনা এবার দেখা গেলো আর সেটি হলো রূপার মাস্ক! করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে পারে এই রূপার মাস্কটি!

বিয়ের গয়নার তালিকায় এবার রূপার মাস্ক! 1

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যেও থেমে নেই বিয়ের অনুষ্ঠান। লকডাউনের মধ্যেও বিয়ে সেরে ফেলছেন অনেকেই, যদিও সংখ্যায় সেটি খুবই গনন্য। তবে করোনার এই পরিস্থিতিতে মাস্ক ছাড়া যে কোনো গতি নেই। তবে বিয়েতে তো নববধূকে যেনোতেনো মাস্ক পরানো যাবে না। এই কথা মাথায় রেখেই রূপার মাস্ক তৈরি করা হয়েছে। বিয়ের অলঙ্কারের তালিকায় রূপার মাস্ক স্থান পাবে বলে আশা করছেন ভারতের ব্যবসায়ীরা।

রূপার মাস্ক তৈরি করেছেন ভারতের কর্ণাটক-মহারাষ্ট্রের সীমান্তবর্তী বেলগাম জেলার অলঙ্কার ব্যবসায়ী সন্দীপ সালগাওকর। করোনা আতঙ্কের আবহে অলঙ্কার হিসাবে এই রূপার মাস্ক ইতিমধ্যেই নজর কেড়েছে বহু মানুষের। বিয়ের পিঁড়িতে বসা বর-কনের মুখ ঢাকা থাকবে নকশা করা রূপোর মাস্কে। অন্যান্য মাস্কের মতো এটিও ইলাস্টিকের সাহায্যে দু’কানের পাশ দিয়ে মাথার ঠিক পিছন দিকে বাঁধা থাকবে।

ওই অলঙ্কার ব্যবসায়ী জানিয়েছেন যে, বিয়ের অন্যান্য অলঙ্কারের মধ্যে বর-কনের মুখ ঢাকা থাকবে সাধারণ কাপড়ের মাস্কে, তা কী করে হয়!? তাই রূপা দিয়ে এই মাস্ক বানানোর কথা মাথায় আসে তার। অলঙ্কার হিসাবে নতুনত্বের চমকে অনেক মানুষ এটিকে পছন্দও করেছেন।

জানা গেছে, এই রূপার মাস্কের ওজন বড়জোড় ২৫ হতে ৩৫ গ্রাম। এর দাম পড়বে আড়াই হতে সাড়ে ৩ হাজার টাকার মধ্যেই। তাই বিয়ের গয়না হিসাবে এটিকে খুব বেশি একটা দামিও বলা যাবে না। তবে এটি বিয়ের সাজের সঙ্গে মানানসইও বটে।

ওই অলঙ্কার ব্যবসায়ী আরও জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই এই মাস্কটি তৈরির অনেক অর্ডার পেয়েছেন তিনি। বিয়ের উপহার হিসাবেও রূপোর মাস্ক কিনছেন অনেকেই। ভবিষ্যতে স্বর্ণ দিয়েও মাস্ক তৈরির ইচ্ছা রয়েছে এই অলঙ্কার ব্যবসায়ীর।

তথ্যসূত্র: জি বাংলা

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...