The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

যে গ্রামের সুন্দরী মেয়েদের বিয়ে হয় না! কিন্তু কেনো?

এই গ্রামের মেয়েরা যথেষ্ট সুন্দরী

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ যে গ্রামের মেয়েদের বিয়ে করতে হবে শুনলেই ছেলেরা পালিয়ে বাঁচে, কিন্তু কেনো? গ্রামটি কিন্তু গণ্ডগ্রাম নয়, যোগাযোগ ব্যবস্থাও ভালো। তাহলে কেনো এমন হয়?

যে গ্রামের সুন্দরী মেয়েদের বিয়ে হয় না! কিন্তু কেনো? 1

এই গ্রামের মেয়েরা যথেষ্ট সুন্দরী। তারপরও এই গ্রামে ছেলেরা তাদেরকে বিয়ে করতে চায় না। মেয়েদের জন্য এই অভিশপ্ত গ্রামটির নাম হলো রতনপুর। ভারতের ভোজপুর জেলায় অবস্থিত এই গ্রাম।

মেয়েদের বিয়ে না হওয়ার কারণ একটাই আর তা হলো বানরের উৎপাত। এই গ্রামে বানরের দলটি বেশ সক্রিয়। স্থানীয় পত্রিকায় মাঝে মধ্যেই ভোজপুর জেলার রতনপুর গ্রামের বানরের নানা কাহিনী উঠে আসে বিভিন্ন সমসয়।

এই গ্রামে বাসিন্দাদের তুলনায় বানরের সংখ্যা নাকি অনেক বেশি। গ্রামবাসীদের সবসময় আতঙ্কের মধ্যে রাখে এখানকার বানরের দলগুলো। বিয়ে কিংবা জন্মদিন এমনকি শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানেও বানরের দল হানা দিতে দেরি করে না। সংঘবদ্ধ হয়ে এসে খাবার নষ্ট করে চলে যায় তারা। ধাওয়া করলে উল্টো দাঁত-মুখ খিচিয়ে আরও তেড়ে আসে। ক্ষেপে গিয়ে আরও বেশি তুলকালাম কাণ্ড ঘটিয়ে বসে।

বানরের আক্রমণের চেয়ে নিরাপদে থাকাটাই বেশি তাই শ্রেয় মনে করেন পাত্রপক্ষ। তাই অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে ওই গ্রামে যেতে চান না কোনো পাত্র। যখনই রতনপুর গ্রাম হতে কোনো বিয়ের প্রস্তাব আসে, তখনই বর এবং তার পরিবার সুস্পষ্ট এই কারণ দেখিয়ে ঘটককে বিদায় করে দেন!

স্থানীয় প্রশাসন এই বিপর্যয় রোধে যথাসাধ্য চেষ্টা ওকরে যাচ্ছেন দীর্ঘদিন ধরেছ। তবে বানরের ক্রমবর্ধমান সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে তারা বিফল হন। বিশেষ করে কোনো আয়োজন উপলক্ষ্যে যখন ভালো-মন্দ খাবার তৈরি করা হয়ে থাকে, তখন বানরগুলো দলবদ্ধভাবে হামলা চালায়। অতীতেও এই গ্রামে এভাবে অনেক বিয়ের অনুষ্ঠান ভুণ্ডল হয়ে গেছে এক মাত্র বানরের কারণে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...