The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এক অফিসিয়াল চেয়ার যার দাম ১৫ হাজার ডলার!

কাজের প্রয়োজনে চাইলেও অনেকেই কাজ রেখে উঠতে পারেন না। ঘণ্টার পর ঘণ্টা চেয়ারে বসে থেকে কাজ করলে মেরুদণ্ডসহ বিভিন্ন ব্যথার সৃষ্টি হয়ে থাকে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অফিসে কম্পিউটারে যারা কাজ করেন তাদেরকে প্রতিদিনই বসে থাকতে হয় ঘণ্টার পর ঘণ্টা। তাই এবার এমন এক চেয়ার বানানো হয়েছে যার দাম ১৫ হাজার ডলার!

এক অফিসিয়াল চেয়ার যার দাম ১৫ হাজার ডলার! 1

কাজের প্রয়োজনে চাইলেও অনেকেই কাজ রেখে উঠতে পারেন না। ঘণ্টার পর ঘণ্টা চেয়ারে বসে থেকে কাজ করলে মেরুদণ্ডসহ বিভিন্ন ব্যথার সৃষ্টি হয়ে থাকে।

অনেকেই দীর্ঘ সময় কাজ করতে করতে চেয়ারেই ঘুমিয়েও পড়েন ক্লান্ত শরীরে। যারা টানা কাজ করেন তাদের মধ্যে বেশিরভাগই এমন ঘটতে দেখা যায়। তবে নিজের ওয়ার্কস্টেশন বা কাজের জায়গাটা যদি হয় রিল্যাক্সেবল, তাহলে একেবারেই মন্দ নয়। উন্নত দেশগুলোতে শরীরের জন্য উপযোগী এরগোনোমিক ওয়ার্ক স্টেশন খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে সাম্প্রতিক সময়ে।

আমেরিকাতে খুব জনপ্রিয়তা পেয়েছে এমন আধুনিক প্রযুক্তির এক ধরনের কম্পিউটার চেয়ার। দীর্ঘ সময় কাজের ক্ষেত্রে শরীরের জন্য খুবই উপকারী এ এরগোনোমিক চেয়ার যেমন আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর, তেমনই দামও পড়ছে আকাশ ছোঁয়া।

২ হাজার ডলার হতে ১৫ হাজার ডলার পর্যন্ত এসব চেয়ারের দাম রাখা হয়েছে, যা কিনা আসলে একটি ওয়ার্ক স্টেশন। বেশি দামী চেয়ারগুলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপসের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হয়ে থাকে। ইচ্ছে হলেই বসে বসে কাজ করা যাবে। আবার বেশিক্ষণ বসে থাকতে ভালো না লাগলে ফোল্ডিং বিছানার মতো শুয়ে শুয়েও কম্পিউটারে কাজ করা যাবে। হাতে কিবোর্ড টাইপ করতে করতে ক্লান্ত হলে তাতে রয়েছে এরগোনোমিক পায়ের কিবোর্ড। পায়ের মাধ্যমে কিবোর্ড চেপে ধরে টাইপ করা যাবে কম্পিউটারে! মোট কথা একজন মানুষ তার শরীরের যেকোনো কসরতে শুয়ে বা বসে চাইলেই যে কোনো পদ্ধতিতে অফিসের কাজ করতে পারবেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...