The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

শূকরের আঁকা ছবি বিক্রি হলো লক্ষাধিক টাকায়!

একদিন হঠাৎ করেই রং-তুলি মুখে তুলে নিয়ে সামনে রাখা ক্যানভাসে আঁকিবুকি শুরু করে দেয় পোষ্য ওই ছানাটি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ কেও কি কখনও ভাবতে পারেন যে শূকর ছবি আঁকতে পারে? আবার তার আঁকা ছবি বিক্রিও হয় লক্ষাধিক টাকায়! এবার ঠিক তাই ঘটেছে।

শূকরের আঁকা ছবি বিক্রি হলো লক্ষাধিক টাকায়! 1

২০১৬ সালে স্থানীয় এক কসাইখানা থেকে চার সপ্তাহের ছোট্ট শূকরের ছানাটিকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে এসেছিলেন এক মহিলা। পেশায় ওই মহিলা একজন চিত্রকর। তাঁর সঙ্গে থাকতে থাকতে একদিন হঠাৎ করেই রং-তুলি মুখে তুলে নিয়ে সামনে রাখা ক্যানভাসে আঁকিবুকি শুরু করে দেয় পোষ্য ওই ছানাটি। রং-তুলির প্রতি ভালোবাসা দেখেই তার নাম রাখা হয় ‘পিগকাসো’। এই পিগকাসোর আঁকা একেকটি ছবি বর্তমানে প্রায় ২ থেকে ৩ লাখ টাকায় বিক্রি হচ্ছে!

শূকর ছানাটি বর্তমানে বেশ বড়সরই হয়েছে। এর আঁকা ‘অ্যাবস্ট্রাক্ট আর্ট’ ধারার ছবিগুলোর প্রতি নজর কেড়েছে বিশ্বের অনেক নামকরা শিল্পীদের। তাই বেশ নাম-ডাকও হয়েছে তার, পিগকাসো নামেই চেনেন সকলেই। পিগকাসোর আঁকা বেশ কয়েকটি ছবি ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল হয়েছে।

জানা গেছে, পিগকাসোর আঁকা একটি ছবি গত বছর ৪ হাজার মার্কিন ডলারে বিক্রি হয়। ওই অর্থ অবশ্য বন্যপ্রাণী সুরক্ষা তহবিতে দান করা হয়।

পিগকাসোর এই জনপ্রিয়তা দেখে বছর খানেক পূর্বে সুইজারল্যান্ডের বিখ্যাত ঘড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থা স্বোয়াচ (Swatch) ‘ফ্লাইং পিগ বাই মিস পিগকাসো’ নামে লিমিটেড এডিশনের ঘড়িও উদ্বোধন করা হয়।

পিগকাসো দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউনের বাইরে ফ্রেঞ্চচেহে ফার্ম অভয়ারণ্যের সংলগ্ন এলাকাতে জোয়ান লেফসনের সঙ্গেই বসবাস করে। গত বছর কেপ টাউনে পিগকাসোর আঁকা ‘অ্যাবস্ট্রাক্ট আর্ট’ ধারার চিত্রগুলো নিয়ে একটি প্রদর্শনীও করা হয়েছে, এই প্রদশর্নী দেখার জন্য সেখানে আসা দর্শকের উৎসাহ ছিল চোখে ধরার মতো! সকলের আগ্রহ ছিলো পিগকাসোর আঁকা ছবি দেখার।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...