The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মাটি খুঁড়তেই পাওয়া গেলো আব্বাসীয় আমলের কলস ভর্তি স্বর্ণ মোহর!

গতকাল (সোমবার) অ্যান্টিকস অথরিটি’র দুই প্রত্নতত্ত্ববিদ লিয়াত নাদাভ-জিভ ও এলিয়ে হাদাদ এক যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ইসলামী স্বর্ণযুগের বিপুল পরিমাণ স্বর্ণমুদ্রার সন্ধান পাওয়া গেছে ইসরায়েলে। জানা যায়, ইসরায়েলের ইয়াভনে শহরের কাছে খননকাজ করার সময় কলস ভর্তি স্বর্ণের মুদ্রা পাওয়া যায়।

মাটি খুঁড়তেই পাওয়া গেলো আব্বাসীয় আমলের কলস ভর্তি স্বর্ণ মোহর! 1

গতকাল (সোমবার) এই তথ্য জানিয়েছেন ইসরায়েলের প্রত্নতাত্ত্বিকরা।ইসরায়েলে প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের চোরাচালান ঠেকানোর দায়িত্ব ইসরায়েল অ্যান্টিকস অথরিটি’র ওপর রয়েছে। সেইসঙ্গে ওই সংস্থা ইসরায়েলে প্রত্নতাত্ত্বিক খনন, রক্ষণাবেক্ষণ ও গবেষণার প্রসারের কাজে নিয়োজিত রয়েছে।

গতকাল (সোমবার) অ্যান্টিকস অথরিটি’র দুই প্রত্নতত্ত্ববিদ লিয়াত নাদাভ-জিভ ও এলিয়ে হাদাদ এক যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছেন যে, তারা মোট ৪শ’ ২৫টি ‘অত্যন্ত দুর্লভ’ প্রাচীন স্বর্ণমুদ্রা পেয়েছেন। প্রতিটি মুদ্রাই খাঁটি সোনা দিয়ে তৈরি। এর মধ্যে অধিকাংশই ১১০০ বছর পুরনো আব্বাসীয় আমলের।

জানা যায়, উদ্ধার হওয়া সম্পদের মধ্যে ছোট আকারের স্বর্ণমুদ্রার অনেক টুকরাও পাওয়া গেছে। সেই আমলে এগুলো স্বল্প মূল্যের মুদ্রা ছিল বলে ইসরায়েলি বিশেষজ্ঞরা অভিমত ব্যক্ত করেছেন।

মূলত নবম শতাব্দীর শেষ সময়টা ছিল আব্বাসীয় খিলাফতের স্বর্ণযুগ। ওই সময় সাম্রাজ্যের সর্বাধিক বিস্তার ঘটে। অ্যান্টিকস অথরিটি’র অন্যতম মুদ্রা বিশেষজ্ঞ রবার্ট কুল জানিয়েছেন যে, উদ্ধার হওয়া স্বর্ণমুদ্রাগুলোতে যে সংকেত বা চিহ্ন দেখা যায় তা থেকে মনে করা হচ্ছে যে, এগুলো আব্বাসীয় খিলাফতের সময়ের স্বর্ণমুদ্রা। যদিও এই বিষয়ে আরও গবেষণা ও বিশ্লেষণের প্রয়োজন রয়েছে বলে তিনি মনে করেন।

আব্বাসীয় খিলাফত সম্পর্কে এখনও বহু তথ্য আমাদের অজানা। উদ্ধার হওয়া স্বর্ণমুদ্রা হতে সে সময় সম্পর্কে আরও অনেক অজানা তথ্য জানা সম্ভব হবে বলে আশাবাদী বিশেষজ্ঞ রবার্ট কুল।

উল্রেখ্য, ইসরায়েলের বিভিন্ন স্থানে ইতিপূর্বেও বিভিন্ন সময় বহু প্রাচীন স্বর্ণমুদ্রা ও অন্যান্য প্রাচীন সম্পদ আবিষ্কার হয়েছে। ২০১৫ সালে প্রাচীন বন্দর শহর সিয়েসারিয়ায় গুপ্তধনের সন্ধান পান জাভিকা ফায়ের নামে এক স্কুভা ডাইভার।

সাগরের তলদেশে ঘুরে বেড়ানোর সময় বিপুল সোনার মোহর আবিষ্কার করেছিলেন তিনি। সেবার প্রায় দুই হাজার সোনার মোহর আবিষ্কার হয়েছিলো। সেগুলো ফাতেমীয় যুগের স্বর্ণমুদ্রা ছিল।

তথ্যসূত্র : টাইমস অব ইসরায়েল

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...