The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মাছের বিক্রি বাড়াতে সংবাদ সম্মেলনে সাবেক মন্ত্রী কাঁচা মাছ চিবিয়ে খেলেন!

সম্প্রতি কলম্বোয় এক সংবাদ সম্মেলনে তার এই কীর্তি দেখে সকলেই হতবাক!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সংবাদ সম্মেলনে রীতিমতো কাঁচা মাছেই কামড় বসালেন সাবেক একজন মন্ত্রী! আবার তা চিবিয়ে খাইয়েও দেখালেন! তিনি হলেন শ্রীলঙ্কার সাবেক মৎস্য মন্ত্রী দিলীপ ওয়েড়ারাচ্চি।

মাছের বিক্রি বাড়াতে সংবাদ সম্মেলনে সাবেক মন্ত্রী কাঁচা মাছ চিবিয়ে খেলেন! 1

সম্প্রতি কলম্বোয় এক সংবাদ সম্মেলনে তার এই কীর্তি দেখে সকলেই হতবাক! তবে বিশেষ একটি কারণেই এমনটি করেছেন এই সাবেক মন্ত্রী। কারণ হলো করোনা মহামারিতে অন্য ব্যবসার মতোই মৎস্যচাষেও মন্দা দেখা দিয়েছে।

করোনার কারণে সামুদ্রিক মাছের বিক্রি শ্রীলঙ্কায় এক ঝটকায় অনেকটা কমে গেছে। সে কারণে মাছের বিক্রি বাড়াতে এই অভিনব পন্থা করেন তিনি। এর মাধ্যমে তিনি বুঝিয়ে দিতে চান, মহামারিতেও সম্পূর্ণ সুরক্ষিত রয়েছে সামুদ্রিক মাছ। কাঁচাই যখন খাওয়া সম্ভব হচ্ছে, তখন রেঁধে নিলে তো কোনো সমস্যাই থাকবে না।

গত মাসে কলম্বোর সেন্ট্রাল ফিশ মার্কেটে করোনা সংক্রমণের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বন্ধ হয়ে যায় মার্কেটগুলো। বিক্রি না হওয়া হাজার হাজার মাছ এই সময় নষ্ট হয়ে যায়। চাহিদা না থাকায় অনেকখানি কমে যায় মাছের দাম।

যে কারণে বিপুল ক্ষতির মুখে পড়েন মাছ ব্যবসায়ীরা। মাছ খেতে রীতিমতো ভয় পাচ্ছেন শ্রীলঙ্কাবাসীরা। সেই আতঙ্ক দূর করতেই এমন একটি কাণ্ড ঘটান দেশটির সাবেক মৎস্য মন্ত্রী।

কাঁচা মাছে কামড় দিয়ে এই সময় তিনি বলেন, “আমাদের মৎস্য ব্যবসায়ীরা একেবারেই মাছ বিক্রি করতে পারছেন না। কারণ হলো দেশবাসী মাছ খেতেই চাইছেন না। সেই জন্য এই মাছটা আমি সঙ্গে এনেছি।

আপনারা দেখুন এটা খেলে কোনও সমস্যায় নেই। প্রত্যেককে অনুরোধ জানাবো যে, সকলে যেনো আগের মতোই বেশি করে মাছ খান। ভয়ের কোনই কারণ নেই। এর থেকে কেওই করোনা সংক্রমিত হবেন না।’

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...