The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হচ্ছে হুয়াওয়ের প্রযুক্তিতে সর্ববৃহৎ সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র

৭৩ মেগা ওয়াট পিভি সক্ষমতার এই সোলার পাওয়ার প্ল্যান্ট

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ দেশের সর্ববৃহৎ সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রে হুয়াওয়ে স্মার্ট ফটোভোলটাইক (পিভি) সমাধান ইনস্টল করা হয়েছে ময়মনসিংহে। এর মাধ্যমে সম্প্রতি জাতীয় গ্রিডের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে এই সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রটি।

জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হচ্ছে হুয়াওয়ের প্রযুক্তিতে সর্ববৃহৎ সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র 1

২০২১ সালের মধ্যে নবায়নযোগ্য শক্তি ব্যবহার করে দেশের সর্বমোট বিদ্যুতের ১০ শতাংশ উৎপাদনে সরকারের লক্ষ্য অর্জনে বিশেষ ভূমিকাও রাখবে ৭৩ মেগা ওয়াট পিভি সক্ষমতার এই সোলার পাওয়ার প্ল্যান্টটি।

জানা যায়, ফটোভোলটাইক সিস্টেম, পিভি সিস্টেম কিংবা সৌর শক্তি ব্যবস্থা এমন একটি বিদ্যুৎ ব্যবস্থা যা ব্যবহারযোগ্য সৌরবিদ্যুৎ সরবরাহে কাজ করে থাকে। সৌর প্যানেল, সোলার ইনভার্টার, মাউন্টিং, ক্যাবলিং এবং অন্যান্য বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশ সম্বলিত এই ফটোভোলটাইক সিস্টেমটি সবকিছুর মধ্যেই সামঞ্জস্য বজায় রেখে ওয়ার্কিং সিস্টেম নিশ্চিত করে।

দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে আর্দ্র ও উষ্ণ জলবায়ুর দেশ বাংলাদেশে প্রতিবছর ২৫শ’ ঘণ্টারও বেশি সূর্যালোক থাকে। এটি বিবেচনায় রেখেই, এই প্রকল্পের সর্বোচ্চ সক্ষমতায় আইপি৬৬ উচ্চস্তরের সুরক্ষা ও অ্যান্টি-পিআইডি প্রযুক্তিসহ হুয়াওয়ে এসইউএন২০০০-১৮৫কেটিএল স্মার্ট পিভি স্ট্রিং ইনভার্টার ব্যবহার করা হয়। এই প্রকল্পটি অবস্থিত ময়মনসিংহের গৌরীপুরে ব্রহ্মপুত্র নদীতীরে। ১৭৩কে সোলার প্যানেল ও ৩৩২ ইনভার্টারের মাধ্যমে এই প্রকল্প জাতীয় গ্রিডে বিশেষ অবদান রাখবে।

এই বিষয়ে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের এন্টারপ্রাইজ বিজনেস গ্রুপের প্রেসিডেন্ট ইয়াং গুয়োবিং বলেছেন, ‘বাংলাদেশ দ্রুতগতিতে ডিজিটালকরণের দিকে এগিয়ে চলেছে এবং এক্ষেত্রে বাংলাদেশের বাজার আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বাজার। ৭৩ মেগাওয়াটের এই প্রকল্পে আমাদের অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করতে পেরে আমরাও অত্যন্ত আনন্দিত। ভবিষ্যতে আমাদের উদ্ভাবন এবং দক্ষতার মাধ্যমে আমরা বাংলাদেশের জ্বালানি খাতের ডিজিটালকরণ ও রূপান্তরেও অবদান রাখতে চাই।’

বিগত কয়েক বছরে বাংলাদেশের নবায়নযোগ্য শক্তিখাতের দ্রুত উন্নতি সাধিত হয়েছে। ২০২১ সালের মধ্যে সরকারের ৩১৬৮ মেগাওয়াট ইনস্টলেশন সক্ষমতার লক্ষ্য নির্ধারণ করা রয়েছে। এই মেগা প্রকল্প সে লক্ষ্য অর্জনের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ ডিজিটাল তথ্যপ্রযুক্তিতে ৩০ বছরের বেশি অভিজ্ঞতাসহ হুয়াওয়ে উদ্ভাবন ও নবায়নযোগ্য শক্তি উৎপাদনের মাধ্যমে প্রতিটি ব্যক্তি, বাসা এবং সংস্থার ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

উল্লেখ্য, হুয়াওয়ে বিশ্বের একটি অন্যতম শীর্ষস্থানীয় তথ্য এবং যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসটি) সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিগণিত হয়ে আসছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...