The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এবার কুড়াল দিয়ে নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্ট ভবনের দরজা ভাঙচুর করা হয়েছে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আমেরিকার পার্লামেন্ট ভবনে ভাংচুরের ঘটনা বিশ্ব যখন তোলপাড় তখন নতুন করে এবার কুড়াল দিয়ে নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্ট ভবনের দরজা ভাঙচুর করার ঘটনা সকলকে আবার স্তম্ভিত করেছে!

এবার কুড়াল দিয়ে নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্ট ভবনের দরজা ভাঙচুর করা হয়েছে! 1

সিএনএন এর এক খবরে বলা হয়েছে, এক দুর্বৃত্ত কুড়ালের আঘাতে নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্ট ভবনের দরজা ভেঙ্গে ফেলেছে। গতকাল (বুধবার) স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৫টায় এই ঘটনাটি ঘটেছে।

নিউজিল্যান্ড পুলিশের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ওই ব্যক্তিকে তৎক্ষণাত গ্রেফতার করে ওয়েলিংটন পুলিশ।

তিনি জানিয়েছেন, লোকটি কাঁচের প্যানেলের কিছু ক্ষতি সাধনও করেছেন, তবে সে ভবনে ঢোকার চেষ্টা করেনি। উদ্দেশ্যমূলকভাবে ক্ষতিসাধন ও আক্রমণাত্মক অস্ত্র বহনের অভিযোগে ৩১ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে ওই দিনই (বুধবার সকালে) ওয়েলিংটনের জেলা আদালতে হাজির করা হয়। তবে সে কী কারণে এই হামলা করেছে তা স্পষ্ট হয়নি। মামলা চলমান থাকার কথা জানিয়ে পুলিশ এর বেশি কিছু মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানায়।

সিএনএনের মালিকানাধীন রেডিও নিউজিল্যান্ড (আরএনজেড) জানিয়েছে যে, কোর্টে হাজির করার পর ওই ব্যক্তিকে একটি নিরাপদ মানসিক স্বাস্থ্য ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। সেখানে একজন ফরেনসিক সেবিকা এবং মানিসক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ তাকে পর্যবেক্ষণ করে। তাকে ২৮ জানুয়ারি পুনরায় কোর্টে হাজির করা হবে বলে জানা যায়।

আরএনজেড আরও জানায়, পরবর্তী ঘোষণা না আসা পর্যন্ত ভাঙচুর হওয়া সম্মুখ দ্বারটি বন্ধ রাখার কথা বলা হয়েছে। এর পরিবর্তে রাবারের দ্বিতীয় একটি দরজা ব্যবহার করার কথা বলা হয়।

হামলার বিষয়ে বিস্তারিত পর্যালোচনা করছে ভবন, মাঠ এবং প্রশাসনের দায়িত্বে থাকা সংসদীয় পরিষেবা বিভাগ। আরও কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রয়োজন কিনা সেটিও তারা খতিয়ে দেখছেন।

সাধারণভাে নিউজিল্যান্ড পার্লামেন্ট ভবনে হুমকির ঘটনা বলা যায় বিরল। তাই আইনসভার বাইরে ন্যূনতম নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা রয়েছে। বাইরের মাঠ জনগণের জন্য উন্মুক্ত রয়েছে। কার্যালয়ের কর্মীরা প্রায়ই ভবনের সামনে ঘাসের উপর বসে তাদের দুপুরের খাবার খেয়ে থাকেন। পার্শ্ববর্তী মাঠে শিশুরা খেলাধুলাও করে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...