The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভ্রাম্যমাণ দ্বীপের মতোই ইরানের সবচেয়ে বড় সামরিক জাহাজ উন্মোচন!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ইরানের নৌবাহিনীতে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্ত হয়েছে তাদের সবচেয়ে বড় একটি সামরিক জাহাজ। বিশাল ওই জাহাজটি একেবারে ভ্রাম্যমাণ দ্বীপের মতোই।

ভ্রাম্যমাণ দ্বীপের মতোই ইরানের সবচেয়ে বড় সামরিক জাহাজ উন্মোচন! 1

পারমাণবিক কর্মসূচি যুক্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তীব্র উত্তেজনার মধ্যে সামুদ্রিক এক ক্ষেপণাস্ত্র মহড়ায় নৌবাহিনীতে যুক্ত হয়েছে আইআরএস মাকরান। নিজ দেশে তৈরি ওই জাহাজটি ৫টি হেলিকপ্টার বহনে সক্ষম। সেই সঙ্গে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ায় সক্ষম আরও একটি জাহাজ ইরানি নৌবাহিনীতেও যুক্ত হয়েছে।

মূলত ইরানের নৌবহরে এটিই হলো সবচেয়ে বড় সামরিক জাহাজ। ১২১ হাজার টনের এই সামরিক জাহাজকে ভ্রাম্যমাণ দ্বীপ হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে! গত পরশু (বুধবার) মাকরান নামে এই জাহাজটি আনুষ্ঠানিকভাবে ইরানি নৌবাহিনীতে যুক্ত হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইরানের সামরিক বাহিনীর চীফ অব স্টাফের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাকেরি ও সেনাবাহিনীর চীফ কমান্ডার মেজর জেনারেল আব্দুর রহিম মুসাভিসহ বেশ কয়েক জন শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা।

ভারত মহাসাগরের উত্তরাঞ্চলে, এডেন উপসাগরের বাবুল মান্দেব ও লোহিত সাগরের মতো এলাকায় ইরানের সামরিক বাহিনীর অভিযানের সময় এই জাহাজটি লজিস্টিক সাপোর্ট দেবে। এই ধরনের জাহাজকে ভ্রাম্যমাণ বন্দরও বলা যেতে পারে এবং সামুদ্রিক অভিযানের সময় এই ধরনের জাহাজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এই জাহাজটির ডেকে হেলিকপ্টার, গানশিপ ও ড্রোনও ওঠানামা করতে পারবে।

এছাড়াও নৌবাহিনীর জন্য হোভারক্রাফট থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের নৌযান বহন করতে পারবে এই জাহাজটি। উত্তাল সমুদ্রের মারাত্মক প্রতিকূল অবস্থার ভেতরেও এই জাহাজটি তার মিশন চালাতে সক্ষম।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...