The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বঙ্গোপসাগরের তীরে এবার ইত্যাদি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বিটিভির জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’ এবার বঙ্গোপসাগরের তীরে ধারণ করা হয়েছে। গত ১৬ জানুয়ারি বাংলাদেশ নেভাল একাডেমির বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্সের সামনে চিত্রায়ণ সম্পন্ন হয়।

বঙ্গোপসাগরের তীরে এবার ইত্যাদি 1

‘ইত্যাদি’র এবারের পর্বে থাকছে দুটি গান। নৌবাহিনীকে নিয়ে রচিত গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেন বাংলাদেশ নৌবাহিনী স্কুল অ্যান্ড কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থীরা। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন নৌসদস্য সৌরভ, মেহেদী, পিয়াল এবং আনুভা। আর নৃত্য পরিচালনা করেছেন মনিরুল ইসলাম মুকুল এবং মামুন।

মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার গৌরব নিয়ে আরেকটি দেশের গান গেয়েছেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী রবি চৌধুরী ও নৌসদস্য লেফটেন্যান্ট সাদিয়া।

গানের সঙ্গে যন্ত্রসংগীতে অংশগ্রহণ করেন নৌবাহিনীর অর্কেস্ট্রা দল। দুটি গানের কথা লিখেছেন গীতিকবি মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান, গানের সুর করেছেন হানিফ সংকেত, এতে সংগীতায়োজন করেছেন মেহেদী।

আরও থাকবে বাংলাদেশ নৌবাহিনী এবং বাংলাদেশ নেভাল একাডেমির ওপর রয়েছে দুটি তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন। পথশিশুদের নেশা থেকে বাঁচিয়ে জীবনের দিশা দেওয়ার জন্য একটি নৈতিক স্কুলও খুলেছেন মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক গাজী সালেহ উদ্দিন।

তার ওপর এতে রয়েছে একটি শিক্ষামূলক প্রতিবেদন। গুড় হলো একটি অত্যন্ত প্রাচীন মিষ্টিজাতীয় খাদ্য ও বাঙালি সংস্কৃতির একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। এবার সেই গুড় তৈরি, গুড়ের মান এবং বিক্রির ওপর ইত্যাদিতে রয়েছে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন।

চুয়াডাঙ্গা জেলার ট্রাফিক পুলিশ সার্জেন্ট মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাসের অনন্য পাখী প্রেমের ওপরেও রয়েছে একটি উদ্বুদ্ধকরণ প্রতিবেদন। পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার হাসান পারভেজ এবং তার হাতে লেখা পত্রিকার ওপর রয়েছে আরও একটি হৃদয়স্পর্শী প্রতিবেদন।

তাছাড়াও ইত্যাদির নিয়মিত পর্বগুলো তো থাকছেই। এবারের ইত্যাদিতে অংশ নিয়েছেন এস এম মহসীন, মাসুম আজিজ, আব্দুল আজিজ, সোলায়মান খোকা, শবনম পারভীন, জিয়াউল হাসান কিসলু, কাজী আসাদ, আমিন আজাদ, সুভাশিষ ভৌমিক, জিল্লুর রহমান, জাহিদ শিকদার, বিলু বড়ুয়া, নিপু, জামিল হোসেন, নজরুল ইসলাম, তারেক স্বপন, সাবরিনা নিসা, সজল প্রমুখ। এই জনপ্রিয় অনুষ্ঠানটি প্রচারিত হবে আগামী শুক্রবার, ২৯ জানুয়ারি রাত ৮টা ৪০ মিনিটে বাংলাদেশ টেলিভিশনে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...