The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

২ ইঞ্চি উচ্চতা বাড়াতে খরচ হলো ৬৩ লাখ টাকা!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বিষয়টি অবিশ্বাস্য মনে হলেও এমনই এক খবর উঠে এসেছে সংবাদ মাধ্যমে। এক ব্যক্তি ২৮ বছর বয়সে ৫ ফুট ১১ ইঞ্চি হতে বেড়ে হয়েছেন ৬ ফুট ১ ইঞ্চি। এরজন্য তাকে খবর করতে হয়েছে ৬৩ লাখ টাকা!

২ ইঞ্চি উচ্চতা বাড়াতে খরচ হলো ৬৩ লাখ টাকা! 1

এমন একটি ঘটনাটি ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডালাস টেক্সাসে। এই ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে উঠে আসতেই শোরগোল পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ডেইলি মেইলের এক খবরে জানা যায়, অ্যালফোনসো ফ্লোরেস নামে ওই ব্যক্তির জীবনের আদর্শ ছিল মাইকেল জর্ডন, কবে ব্রিয়ান্ট এবং ফিল জ্যাকসন। যাদের সবারই উচ্চতা ছিল ৬ ফুট। ফ্লোরেসও চাইতো তাদের মতোই হতে। তবে তার উচ্চতা ২৫-২৬ বছর পেরিয়ে বৃদ্ধির কোনো সম্ভাবনায় ছিল না। পরে তিনি চিকিৎসকের শরনাপন্না হন। চিকিৎসক ডা. কেভিন, তিনি লিম্বপ্লাস্ট চিকিৎসালয়ের একজন চিকিৎসক ছিলেন। বিগত ৭ মাস ধরে তিনি চিকিৎসা চালিয়ে ৫ ফুট ১১ ইঞ্চি হতে বেড়ে ৬ ফুট ১ ইঞ্চি বৃদ্ধি করেছেন ফ্লোরেসের উচ্চতা।

তার এই সার্জারিটি করেছেন লাস ভেগাসে অবস্থিত দ্য লিম্বপ্লাস্টেক্স ইনস্টিটিউটের হার্ভার্ড প্রশিক্ষিত অর্থোপেডিক সার্জন ডা. কেভিন দেবিপারসাদ। এই বিষয়ে তার ওয়েবসাইট হতে জানা যায়, ফ্লোরেস তার এই চিকিৎসায় ৭৫ হাজার ডলার (বাংলাদেশী মুদ্রায় যা প্রায় ৬৩ লাখ ৪৪ হাজার টাকার সমান) খরচ করতে হয়েছে।

ডেইলি মেইল ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, এই চিকিৎসা পদ্ধতিকে বলা হয় ‘কসমেটিক মিল্ব লেথারনিং’। এর মধ্যদিয়ে এক্স-রে জাতীয় অস্ত্রোপচার করা হয়ে থাকে। যে কারণে তার কিছুটা করে পায়ের দিকে উচ্চতা বাড়ানো সম্ভব হয়। মূলত বাহ্যিক যন্ত্র প্রয়োগের মাধ্যমে কসমেটিক মিল্ব লেথারনিং সার্জারি বলা হয়ে থাকে। এই সার্জারি কিছুটা ঝুকিপূর্ণও বটে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...