The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ এবার বর্ণবাদবিরোধী শান্তিপূর্ণ অসহযোগের স্বীকৃতি পেয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলন এবং জাতিগত বৈষম্যের প্রতিবাদকারী হিসেবে সুইডেনের সম্মানজনক ওলফ পালমে হিউম্যান রাইটস প্রাইজ জিতরো দ্য ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার গ্লোবাল নেটওয়ার্ক ফাউন্ডেশন।

‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ এবার বর্ণবাদবিরোধী শান্তিপূর্ণ অসহযোগের স্বীকৃতি পেয়েছে 1

বিশ্বজুড়ে ‘পুলিশের বর্বরতা ও জাতিগত সহিংসতার বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ নাগরিক অবাধ্যতাকে প্রচার করার কারণে এই ফাউন্ডেশনকে সম্মান জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

২০১৩ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যাত্রা শুরু হয় বর্ণবাদবিরোধী এই ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার অন্দোলনের। গত বছর জর্জ ফ্লয়েড, ব্রেওনা টেইলরসহ কয়েকজন কৃষ্ণাঙ্গের ওপর চালানো পুলিশী নৃশংসতাকে কেন্দ্র করে তা আন্তর্জাতিক এক স্লোগানে পরিণত হয়।

৩০ জানুয়ারি সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে অনলাইন আয়োজনের মাধ্যমে ফাউন্ডেশনটিকে পুরস্কার প্রদান করা হয়। পুরস্কারদাতাদের পক্ষ হতে ফাউন্ডেশনের প্রশংসা করে বলা হয় যে, ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার আন্দোলন বিশ্ববাসীকে দেখিয়ে দিয়েছে যে, বর্ণবাদ ও বর্ণবাদী সহিংসতা শুধু আমেরিকান সমাজের সমস্যাই নয়, এটি একটি বৈশ্বিক সমস্যা। ভিন্ন একটি বর্ণের মানুষদের সঙ্গে সমভাবে মূল্যায়িত না হওয়া আফ্রিকান-আমেরিকান সংখ্যালঘুদের কষ্ট, বেদনা এবং ক্রোধকে অনন্যভাবে প্রকাশ করেছে এই ফাউন্ডেশনের আন্দোলন।

১৯৮৬ সালে আততায়ীর হাতে নিহত সুইডিশ প্রধানমন্ত্রী এবং মানবাধিকারকর্মী ওলফ পালমের নামে এই পুরস্কারটি প্রবর্তন করা হয়েছে। এর মূল্যমান হলো ১ লাখ ডলার।

উল্লেখ্য যে, নরওয়ের এমপি পিটার আইডেও এই বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রদানের জন্য ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার ফাউন্ডেশনকে মনোনীত করার প্রস্তাবও দিয়েছেন। মনোনয়ন পত্রে তিনি জানিয়েছেন যে, বর্ণবাদী অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিশ্বব্যাপী এই ফাউন্ডেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে আসছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...