The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

পাপন-তামান্না প্রমির মিউজিক ভিডিওতে নিরব [ভিডিও]

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ চলচ্চিত্রের ব্যস্ত নায়ক নিরব দ্বিতীয়বারের মতো মিউজিক ভিডিওতে হাজির হয়েছেন। ধ্রুব মিউজিকের ইউটিউব চ্যানেলে সম্প্রতি নিরবের এই মিউজিক ভিডিও ‘হৃদয়ে তোমার ঠিকানা’ উন্মুক্ত করা হয়েছে।

পাপন-তামান্না প্রমির মিউজিক ভিডিওতে নিরব [ভিডিও] 1

এই মিউজিক ভিডিওতে দ্বৈতভাবে গান গেয়েছেন বলিউড ও আসামের শিল্পী পাপন এবং বাংলাদেশের তামান্না প্রমি। ‘হৃদয়ে তোমার ঠিকানা’ গানটি লিখেছেন রবিউল ইসলাম জীবন ও সুর সংগীত করেছেন অদিত রহমান। দৃষ্টিনন্দন এই মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করেছেন শাহরিয়ার পলক। এই বিষয়ে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গানটি ইতিমধ্যেই দর্শক শ্রোতারা গ্রহণ করেছেন এবং তারা বেশ প্রশংসাও পাচ্ছেন।

নিরব সিনেমায় সরব থেকে একের পর এক সিনেমা করছেন। বর্তমানে ফরিদপুরে অনন্য মামুনের ‘কসাই’ ওয়েব ফিল্মের শুটিং করছেন তিনি। সেখান থেকেই সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ২০১২ সালে কনার সঙ্গে প্রথমবার মিউজিক ভিডিও করেছি। নিরব বলেন, ওই ভিডিওটির পরিচালক ছিলেন গাজী শুভ্র। বাংলাদেশে প্রথম সেবার এরি এলেক্সা ক্যামেরায় ব্যয়বহুলভাবে গানটির শুটিং করা হয়েছিল।

প্রমির সঙ্গে দ্বিতীয়বারের মতো মিউজিক ভিডিও সম্পর্কে নিরব জানিয়েছেন, কয়েকটি কারণে তিনি তামান্না প্রমির গানের মডেল হয়েছেন। নিরব বলেছেন, শিল্পী তামান্না প্রমি আমার খুব নিকট মানুষদের একজন। অনেকদিন ধরেই সে চাচ্ছিল আমার সঙ্গে কাজ করবে। ফাইনালি এই গানের মাধ্যমে তা সম্ভব হলো। আরেকটি কারণ হলো পরিচালক শাহরিয়ার পলক। তিনি খুব মেধাবী একজন নির্মাতা।

এই গানটির ভিডিও নির্মাণ পরিকল্পনা ছিল এক অন্যরকম। ক্যামেরার কাজে ফিল্মি ফ্লেবারও ছিল। নিরব বলেন, মিউজিক ভিডিওটি করার সবশেষ কারণ হলো শিল্পী পাপন। কোক স্টুডিওসহ ঢাকা আন্তর্জাতিক ফোক ফেস্টের মঞ্চে তার গান শুনে মুগ্ধ হয়েছি। তার রিদম গিটার, কি-বোর্ডের কারিশমা আমি আগে থেকেই জানি। সবকিছু মিলে পছন্দ হওয়ায় মিউজিক ভিডিওটি এবার করলাম। তাছাড়াও গানটা একটু অন্যরকম। ভিডিওতে ছিল এক্সপ্রেশনের খেলাও। যে পরিমাণ ভিউস হয়েছে একেবারেই তা সন্তুষ্টজনক। ইতিমধ্যেই প্রায় তিন লক্ষ ভিউ হয়েছে এই ভিডিওটির।

দেখুন ভিডিও গানটি

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...