The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির প্রতিশ্রুতি: ১৮ বছর হলেই মেয়েদের ২ লাখ রুপি দেওয়া হবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ক্ষমতায় এলে মেয়েদের লেখাপড়া-সহ সব বিষয়ে আরও গুরুত্ব দেবে- এমন প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির প্রতিশ্রুতি: ১৮ বছর হলেই মেয়েদের ২ লাখ রুপি দেওয়া হবে 1

প্রতিশ্রুতিতে বলা হয়েছে, বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে কোনও মেয়ের ১৮ বছর বয়স হলেই তাকে তখন এককালীন ২ লাখ রুপি দেওয়া হবে।

দলটির বিধানসভা নির্বাচনের ইস্তাহারে এমনই প্রতিশ্রুতি দিয়েছে দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। রবিবার সন্ধ্যায় অমিত শাহ ইশতেহার প্রকাশ করেন। তাতে বলা হয়, তার নাম দেওয়া হয়েছে ‘সোনার বাংলা সঙ্কল্প পত্র’।

মোট ১৩টি পর্বে ভাগ করা হয়েছে এই ইশতেহার। মহিলা, কৃষক, স্বাস্থ্য, যুব, প্রশাসন, আর্থিক উন্নয়ন, সংস্কৃতি, পরিকাঠামো, পর্যটন, সবার বিকাশ, আঞ্চলিক উন্নয়ন, কোলকাতা ও পরিবেশ রক্ষার বিষয়ে পৃথক পৃথক প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে ওই ইশতেহারে। এর মধ্যে আবার মহিলাদের উন্নয়নের বিষয়ে বিশেষ নজরও থাকছে।

এখন রাজ্য সরকার ‘কন্যাশ্রী’ প্রকল্পের মাধ্যমে মেয়েদের লেখাপড়ার জন্য বছর বছর রুপি দেওয়ার পাশাপাশি ১৮ বছর বয়স হলেই এককালীন ২৫ হাজার রুপি দেওয়া হয়। বিজেপি-র প্রতিশ্রুতি, ক্ষমতায় এলে পদ্ম-সরকার ১৮ বছর বয়স হলেই মেয়েদেরকে ২ লাখ রুপি দেবে।

এই প্রকল্পটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘বালিকা আলো’। বলা হয়েছে যে, স্কুল ছাত্রীরা ষষ্ঠ শ্রেণীতে উঠলেই বছরে ৩ হাজার, নবম শ্রেণীতে উঠলে ৫ হাজার এবং একাদশ শ্রেণীতে উঠলে বছরে ৭ হাজার রুপি করে পাবে।

২০১১ সালে রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরই মহিলাদের জন্য ‘কন্যাশ্রী, ‘রূপশ্রী’-সহ নানা প্রকল্প ঘোষণা করেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার ব্যাপক সাফল্যও দাবি করে তৃণমূল। বিজেপি-র ইশতেহারে এটা স্পষ্ট যে মমতার পরীক্ষিত পথেই নির্বাচনে জেতার লড়াইয়ে হাঁটতে চলেছে বিজেপি।

একই সঙ্গে মহিলাদের জন্য সরকারি চাকরিতে ৩৩ শতাংশ সংরক্ষণের কথাও বলা হবে। এ ছাড়া কেজি থেকে এমএ পর্যন্ত মেয়েদের লেখাপড়া সব স্তরেই হবে বিনামূল্যে। রাজ্যে মেয়েদের পরিবহণও একেবারেই বিনামূল্যে হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিজেপি।

তফসিলি ও অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণী ও আর্থিক দিক হতে পিছিয়ে থাকা পরিবারের কন্যা সন্তান জন্ম নিলেই ৫০ হাজার রুপির বন্ড দেবে দেশটির রাজ্য সরকার।

এই শ্রেণীর পরিবারের মহিলাদের জন্য ১ লাখ রুপির ফিক্সড ডিপোজিট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়- ‘ঘরে লক্ষ্মী যোজনা’। ১৮ বছর বয়সের পর বিবাহ হলেই এই সুবিধাটি পাওয়া যাবে।

মহিলাদের খুশি করতে আরও অনেকগুলো প্রতিশ্রুতি রয়েছে বিজেপির ইশতেহারে। বলা হয়েছে যে, রাজ্য পুলিশে ৯টি মহিলা ব্যাটেলিয়ন তৈরি হবে। একই সঙ্গে রাজ্য রিজার্ভ পুলিশ বাহিনীতেও ৩টি মহিলা ব্যাটিলিয়ন তৈরি হবে।

প্রতিটি থানাতে মহিলাদের জন্য পৃথক হেল্প ডেস্ক হবে। এর দায়িত্বে থাকবেন মহিলারাই। সেইসঙ্গে বিজেপি-র প্রতিশ্রুতি ‘আত্মনির্ভর মহিলা’ প্রকল্পের আওতায় মহিলা স্বনির্ভর গোষ্ঠীর জন্য ২ হাজার কোটি রুপি বরাদ্দ দেওয়া হবে।

রাজ্যটির মহিলাদের এককালীন ২০ হাজার রুপি করে ঋণও দেবে সরকার। রাজ্যে বিধবা ভাতা মাসিক ১ হাজার হতে বাড়িয়ে ৩ হাজার রুপি করা হবে। প্রসূতিদের বর্তমানে রাজ্য সরকার ৫ হাজার রুপি দেয়। সেটি বাড়িয়ে ৯ হাজার রুপি করা হবে।

রাজ্যের সর্বত্র স্কুল-কলেজে, বাজারে ৫০ হাজার সেনেটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডিং মেশিন বসানো হবে। মাত্র ১ রুপিতেই পাওয়া যাবে সেনেটারি ন্যাপকিন। নির্বাচনী প্রচার প্রপাগাণ্ডায় নেমে এমন নানা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ভারতের বর্তমান ক্ষমতাসীন দল বিজেপি।

তথ্যসূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...