The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভারতের হায়দারাবাদে ৪শ বছরের প্রাচীন ক্ষুদ্রতম মসজিদ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শুভ সকাল। শুক্রবার, ২৬ মার্চ ২০২১ খৃস্টাব্দ, ১২ চৈত্র ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ শাবান ১৪৪২ হিজরি। দি ঢাকা টাইমস্ -এর পক্ষ থেকে সকলকে শুভ সকাল। আজ যাদের জন্মদিন তাদের সকলকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা- শুভ জন্মদিন।

ভারতের হায়দারাবাদে ৪শ বছরের প্রাচীন ক্ষুদ্রতম মসজিদ 1

যে মসজিদটি আপনারা দেখতে পাচ্ছেন সেটি ভারতের হায়দারাবাদে ৪শ বছরের প্রাচীন ক্ষুদ্রতম মসজিদ। এটি একটি ঐতিহাসিক মসজিদ।

এই মসজিদটি মির মাহমুদ শাহ মসজিদ বা জিনের মসজিদ হিসেবে পরিচিত। হয়াদারাবাদের তেলেঙ্গানায় অবস্থিত এই ৪শ বছরের পুরোনো প্রাচীন এবং ক্ষুদ্রতম ঐতিহাসিক মসজিদ এটি। ইমাদ নগরে মির মাহমুদ কি পাহাদিতে ক্ষুদ্র মসজিদটির অবস্থান।

মসজিদ প্রাঙ্গণে সুফি মির মাহমুদ সুফির নির্মিত একটি দরগাহ রয়েছে। ষষ্ঠদশ শতাব্দিতে গোলকোন্দার শাসক আবদুল্লাহ কুতুবের শাসনকালে মির মাহমুদ ইরাক হতে এসে এই দরগাহ স্থাপন করেন।

মির মাহমুদ মসজিদে কুতুব শাহি আমলের ঐতিহ্যবাহী স্থাপতশৈলীও পাওয়া যায়। বিশেষত ক্ষুদ্র মসজিদে একটি বারান্দা ও একটি বড় খিলানও রয়েছে।

এছাড়াও মুসল্লিদের জন্য রয়েছে একটি ছোট প্রাঙ্গণ। বর্তমানে প্রাচীন কুতুব শাহী মসজিদের বিভিন্ন অংশ জরাজীর্ণ এবং ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়েছে। পুননির্মাণ করা না হলে পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়ে পড়বে।

কয়েক বছর ধরে প্রয়োজনীয় মেরামত কাজ করার পরও দরগাটির বেশিরভাগ শিলালিপি, জলকর্ম এবং স্টুকো রং মুছে গেছে। তবে বাকি থাকা অংশ থেকে সমাধির একটি শৈল্পিক কাজ বোঝা যায়। গম্বুজের ভেতর কয়েকটি মূল্যবান ধ্বংসাবশেষ এবং একটি বাক্স রয়েছে যা খুব কমই খোলা হয়।

এছাড়াও মসজিদের দেয়াল থেকে চুন-প্লাস্টার ছিটকে পড়ছে। মসজিদে গমনপথে পাথর খসে পড়ায় চলাচলের জন্য বিপজ্জনক হয়ে দাঁড়িয়েছে। ওপড়ে ওঠার সিড়িতেও কোনো রেলিং নেই।

বিশ্বের ক্ষুদ্রতম এই মসজিদে মাত্র ৫ জন একসঙ্গে নামাজ আদায় করতে পারেন। ৪শ বছরের পুরোনো জিন মসজিদটি মাত্র ১১০ স্কয়ার ফুটের। ষষ্ঠদশ শতাব্দির জিন মসজিদটি এখনও আর্কিওলোজিকাল সার্ভাইভর অব ইন্ডিয়া (এএসআই)-এর সঙ্গে অন্তর্ভূক্ত হয়নি।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...