The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

করোনার প্রকোপ: মৃত্যুভয়ে উইল করতে ব্যস্ত চীনা তরুণরা!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ চায়নিজ উইল রেজিস্ট্রেশন সেন্টারের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, চীনে আগের চেয়ে অনেক বেশি তরুণরা উইল (ইচ্ছাপত্র ) প্রস্তুত করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। মনে করা হচ্ছে করোনার কারণে মৃত্যুভয়ে এমনটি করা হচ্ছে!

করোনার প্রকোপ: মৃত্যুভয়ে উইল করতে ব্যস্ত চীনা তরুণরা! 1

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, মহামারির কারণে তরুণরা মৃত্যু ও সম্পদ সম্পর্কে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। তাই উইল লেখার সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে।

সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত ওই তথ্যে বলা হয়, ১৯৯০ সালের পর জন্মগ্রহণকারী তরুণদের মধ্যে উইল লেখার এই সংখ্যা ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, যা আগের বছরগুলোর তুলনায় অনেক গুণ বেশি। বিশেষ করে বিদেশে অবস্থান করা চীনা জনগণ তাদের সম্পদ ব্যবস্থাপনার জন্য উইলের প্রতি আরও বেশি ঝুঁকছেন।

ওই প্রতিবেদনে দেখা যায়, ৮০ শতাংশেরও বেশি তরুণ তাদের সঞ্চয় ব্যবস্থাপনার জন্য উইল প্রস্তুত করছেন। এছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টের মতো ভার্চুয়াল সম্পদ নিয়ে যারা কাজ করেন তারাও ইচ্ছাপত্র তৈরি করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

গুয়াংডং-এর চায়না উইল অর্গানাইজেশনের পরিচালক ইয়াং ইংগি রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সিসিটিভিকে এই বিষয়ে বলেছেন, করোনা ভাইরাস মহামারি অনেক তরুণ চীনাকেই মৃত্যুর কথা ভাবতে বাধ্য করেছে। তারা ভাবছেন যদি তারা মারাও যান এবং কে তাদের বাবা-মা ও বাচ্চাদের দেখাশোনা করবে ও তাদের সম্পদেরই বা কী হবে।

চীনা আইনে বলা হয়েছে যে, ১৮ বছরের বেশি বয়সী যে কেও তার সম্পদের উইল লিখতে পারবেন। আবার ১৬ বছর বয়সী তরুণরাও পারবেন, যদি তিনি স্বাধীনভাবে আয় করতে পারেন।

উল্লেখ্য, সাধারণত চীনে যারা উইল লিখে নেন, তাদের গড় বয়স ৬৭ বছর। এই সংখ্যা ইউরোপীয় দেশগুলির তুলনায় দ্বিগুণেরও বেশি চীনে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...