The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ব্যাগভর্তি চুরি করা টিকা চিঠি লিখে ফেরত দিলেন চোর!

এক চোরের কাণ্ডে হতবাক সবাই

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এক চোরের কাণ্ডে হতবাক সবাই। চুরি করে নিয়ে যাওয়া ব্যাগভর্তি করোনার টিকা চিঠি লিখে ফেরত দিয়ে গেছেন চোর! গত ২২ এপ্রিল ভারতের হরিয়ানায় ঘটেছে এমন একটি ঘটনা।

ব্যাগভর্তি চুরি করা টিকা চিঠি লিখে ফেরত দিলেন চোর! 1

চোরের রেখে যাওয়া ওই ব্যাগটিতে ছিলো করোনা ভাইরাসের ১৭ হাজারেরও বেশি টিকা। চিঠিতে চোর লিখেছে যে, ব্যাগের ভেতরে যে টিকা ছিল চুরির সময় তা তিনি জানতেন না। চুরি যাওয়া ওই ব্যাগটিতে ভারতে অনুমোদন পাওয়া কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিনের টিকা রাখা ছিলো।

কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিনের ডোজ ফেরত দিয়ে হিন্দিতে চোর লিখে গেছেন যে, ‘সরি, আমি জানি না যে এতে করোনার ভ্যাকসিন রয়েছে।’

জিন্দের জেনারেল হাসপাতালে স্টোর রুম হতে ওই ব্যাগটি হারিয়ে যায়। ২২ এপ্রিল দুপুরে সেটির সঙ্গে একটি চিঠিও ফিরে পায় হাসপাতালের কর্মীরা।

বর্তমানে ওই চোরকে শনাক্তের চেষ্টা চালাচ্ছে স্থানীয় পুলিশ। এছাড়াও এই ঘটনায় একটি মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, দুপুরের দিকে সিভিল লাইন পুলিশ স্টেশনের বাইরে একটি চায়ের দোকানে এক ব্যক্তির হাতে ব্যাগটি ধরিয়ে দেন জনৈক ব্যক্তি। থানায় খাবার সরবরাহ করা লোকটির হাতে ব্যাগ ধরিয়ে দিয়ে চোর তখনই পালিয়ে যায়।

পুলিশের সন্দেহ চোর সম্ভবত করোনার ওষুধ রেমডিসিভির ভেবেই টিকার ওই ডোজগুলো নিয়ে পালিয়ে যায়।

উল্লেখ্য, আগামী ১ মে হতে ১৮ বছরের বেশি বয়সী সব নাগরিককেই টিকা দেওয়া শুরু করতে যাচ্ছে ভারত। ২৮ এপ্রিল হতে এই বয়সীদের নিবন্ধন শুরু হবে। নিবন্ধন প্রক্রিয়া ও এর জন্য প্রয়োজনীয় নথিপত্র ঠিক আগের মতোই থাকবে।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে পুরো ভারত। এক দিনেই দেশটিতে আক্রান্ত হচ্ছে সাড়ে তিন লাখেরও বেশি মানুষ। প্রতিদিন মারা যাচ্ছে আড়াই হাজারের বেশি মানুষ। হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট ও বেডের চরম সংকট দেখা দিয়েছে। শ্মশানে জায়গা না থাকায় গণচিতার মাধ্যমে লাশ দাহ করা হচ্ছে। তাছাড়া কবরস্থানগুলোতেও সংকট দেখা দিয়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...