The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

রমজান মাসে ‘ইফতারের আগে’ ট্যাং জুসের বিজ্ঞাপন বন্ধ করার দাবি বেসরকারি ভোক্তা অধিকার সংস্থার

কনসাস কনজুমার্স সোসাইটি (সিসিএস)

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ পবিত্র রমজান মাসে ইফতারের পূর্বে ‘ট্যাং জুস’-এর আজানের ধ্বনিযুক্ত বিজ্ঞাপন বন্ধের আবেদন জানিয়েছেন বেসরকারি ভোক্তা অধিকার সংস্থা কনসাস কনজুমার্স সোসাইটি (সিসিএস)।

রমজান মাসে ‘ইফতারের আগে’ ট্যাং জুসের বিজ্ঞাপন বন্ধ করার দাবি বেসরকারি ভোক্তা অধিকার সংস্থার 1

গতকাল রবিবার (২৫ এপ্রিল) জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের (ডিএনসিআরপি) ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ে এই সম্পর্কিত লিখিত আবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। সিসিএসের পক্ষে এই আবেদনটি করেছেন সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক পলাশ মাহমুদ।

আবেদনের বলা হয়, ‘মাল্টিব্রান্ডস লিমিটেড’ তাদের পণ্য ‘ট্যাং জুস’-এর একটি বিজ্ঞাপনে ইসলাম ধর্মের পবিত্র আজানের ধ্বনি (আল্লাহু আকবর) যুক্ত করে বিভিন্ন টেলিভিশনে প্রচার করে আসছে। বিজ্ঞাপনটি বিশেষ করে ইফতারের কিছুক্ষণ আগে হতে বেশি বেশি প্রচারিত হয়। যে কারণে লাখ লাখ সম্মানিত রোজাদার যারা টেলিভিশনে আজান শুনে ইফতার গ্রহণ করেন তারা বিভ্রান্ত হচ্ছেন।

আবেদনের বলা হয় যে, ইসলাম ধর্মের নিয়ম অনুযায়ী সূর্য ডোবার সঙ্গে সঙ্গে ইফতার করতে হয়। সাধারণ মানুষ আজানকে ইফতারের সময় হিসেবে জানেন। সে জন্য সঠিক সময় নির্বাচনে টেলিভিশনে প্রচারিত আজানকে বিশ্বাসযোগ্য হিসেবেই বিবেচনা করে থাকেন সাধারণ মানুষ। তবে আজানের ঠিক কিছু সময় পূর্ব হতে এমন বিজ্ঞাপন প্রচার করায় মানুষ বিজ্ঞাপনকে সত্যি সত্যি আজান মনে করে বিভ্রান্ত হচ্ছেন। বহু মানুষ বিভ্রান্ত হয়ে ইফতারের সময় হওয়ার আগেই ইফতার করে ফেলছেন।

সিসিএস আরও জানায়, শুধু বাণিজ্যিক স্বার্থে কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলমানের পবিত্র ইবাদত নিয়ে এমন হীন কার্যক্রমের বিষয়ে ভোক্তা সাধারণের মধ্যেও ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এই বিষয়গুলো বিবেচনায় নিয়ে আজানের ধ্বনিযুক্ত বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে কনসাস কনজুমার্স সোসাইটি (সিসিএস)।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...