The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মাত্র এক জোড়া জুতার দাম ১৫ কোটি ২৬ লাখ টাকা!

২০০৮ সালে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে নাইকি এয়ার ইজি মডেলের এই স্নিকার্সটি পরেছিলেন ওয়েস্ট

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এবার একটি নিলামে এক জোড়া স্নিকার্স ১৮ লাখ ডলার যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১৫ কোটি ২৬ লাখ ৪৬ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে।

মাত্র এক জোড়া জুতার দাম ১৫ কোটি ২৬ লাখ টাকা! 1

মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি সোথেবে’স জানিয়েছে যে, ইতিপূর্বে কখনও কোনও স্নিকার্স এতো বেশি দামে বিক্রি হয়নি। মার্কিন র‌্যাপার কেইন ওয়েস্টের পরিহিত বলেই হয়তো এই জুতার দাম এতো বেশি।

২০০৮ সালে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে নাইকি এয়ার ইজি মডেলের এই স্নিকার্সটি পরেছিলেন ওয়েস্ট। স্নিকার ইনভেস্টিং প্লাটফর্ম রেয়ারস রেকর্ড দামে এই জুতা জোড়াটি কিনেছে। ফ্রাকশনাল মালিকানায় নেতৃত্ব দিয়ে থাকে এই প্রতিষ্ঠানটি। স্নিকার্স কেনা ও বেচার মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের বিনিয়োগের সুযোগ নেন তারা।

ইতিপূর্বে সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হওয়া স্নিকার্সের মূল্য ছিল ৫ লাখ ৬০ হাজার ডলার। গত বছর ২০২০ সালের মে মাসে সেটি বিক্রি হয়। ১৯৮৫ সালের এয়ার জর্ডান ওয়ানএস মডেলের এই জুতাটি বাস্কেটবল খেলোয়াড় মাইকেল জর্ডানের জন্য তৈরি করা হয়।

জানা যায়, নিউইয়র্কের সংগ্রাহক রায়ান চ্যাংয়ের পক্ষে এই জুতা জোড়া নিলামে তুলেছিলো সোথেবে’স। ২০০৮ সালের গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে হেই মামা অ্যান্ড স্ট্রংগারে গানের আবেগী পারফর্ম্যান্সের সময় এই জুতা জোড়াটি পরেছিলেন ওয়েস্ট। যে কারণে ফ্যাশনপ্রেমী কাছে এটি ব্যাপক সাড়া পায়।

পরবর্তীকালে ২০১৩ সালে নাইকির সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্কের ইতি টানেন ওয়েস্ট। তারপর অ্যাডিডাস ব্র্যান্ডের সঙ্গে চুক্তি করেন তিনি। সেখানে এই ইজি ব্র্যান্ডের স্নিকার্স ২০২০ সালে ১.৭ বিলিয়ন ডলার আয় করতে সমর্থ হয়।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...