The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ধর্ম, মানবতা ও বন্ধুত্ব এমনই হোক!

মানবতা এখনও সমাজ থেকে উঠে যায়নি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভারতের করোনা পরিস্থিতি কতোটা ভয়াবহ তা দেশটির বর্তমান চিত্র দেখেই বোঝা যাচ্ছে। লাশ সৎকারে যখন আপনজনরা সরে থাকছেন তখন অন্য ধর্মের মানুষও মানবতার খাতিরে এগিয়ে আসছেন এবং দৃষ্টান্ত স্থাপন করছেন।

ধর্ম, মানবতা ও বন্ধুত্ব এমনই হোক! 1

করোনা বিধ্বস্ত ভারতের এক জনপদের হতভাগা মানুষ হলেন অনুভব শর্মা। অনেক লড়ে- শেষ পর্যন্ত করোনার কাছে হার মেনে যিনি চলে গেলেন পরপারে। বর্তমানে এটি ভারতে অস্বাভাবিক কিছুই নয়। প্রতিনিয়ত এমন হাজারও ভারতবাসী করোনার কাছে হার মানছেন ঠিক এভাবেই।

ভারতে করোনায় মৃত্যুর হার এমন অবস্থায় ঠেকেছে যে, এক অ্যাম্বুলেন্সে গাদাগাদি করে ২২ লাশ বহনের চিত্রও এখন ভাইরাল নেট দুনিয়ায়। একের পর এক লাশ, দিল্লীসহ ভারতের বিভিন্ন স্থানের চিত্রও এমন। পরিবারের সদস্য, পাড়া-প্রতিবেশি কেওই নেই, নেই লাশ পরিবহণের গাড়ী।

তবে করোনায় মৃত্যু বরণকারী অনুভব শর্মার দুর্ভাগ্যটা অন্য রকম। মৃত্যুর পরও তার জায়গা হয়নি কোথাও। লাশ নিয়ে যাওয়ার জন্য আসেনি কোনো আত্মীয় স্বজন- সৎকারতো দূরের কথা।

পরিবারের সদস্য, আত্বীয়-স্বজন ও পাড়া প্রতিবেশি যখন অনুভবের লাশ গ্রহণ ও সৎকারে অপারগ তখন এগিয়ে এলেন মোহাম্মদ ইউনুস নামে একজন মুসলিম বন্ধু। লাশ গ্রহণ করে সৎকারের সব ব্যবস্থা করলেন তিনি। এমনকি চিতায় আগুনও দিলেন মোহাম্মদ ইউনুস নিজেই! দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন এক অনন্য।

হিন্দু ধর্ম নিয়মনুসারে সৎকারে সব দায়িত্বই ওই সময় পালন করলেন ইউনুস। একজন হিন্দুর লাশ গ্রহণ এবং সৎকারে যখন কোনো হিন্দুর দেখা নেই, ঠিক তখন একজন মুসলিম যুবকের এমন মহানুভবতায় মুগ্ধ বিশ্বের সচেতন মানবসমাজ। জয় হোক মানব সভ্যতার।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...