The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

অসুস্থ মায়ের রিপোর্ট আনতে সাইকেলে করে ১৪০ কিমি পাড়ি!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ করোনার ভয়াবহতা ভারতে প্রবল। লকডাউনের কারণে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তাই কোনো উপায় না পেয়ে অসুস্থ মায়ের মেডিক্যাল রিপোর্ট আনতে শেষ পর্যন্ত সাইকেলে করে ১৪০ কিলোমিটার পাড়ি দিলেন এক যুবক।

অসুস্থ মায়ের রিপোর্ট আনতে সাইকেলে করে ১৪০ কিমি পাড়ি! 1

ওই মাতৃভক্তির ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলায়। মায়ের জন্য সন্তানের এমন ভালোবাসায় মুগ্ধ সকলেই। সম্প্রতি এই বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেদন করেছে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা অনলাইন।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মাসখানেক ধরে অসুস্থ ছিলেন মা। কোনোভাবেই ভালো যাচ্ছিল না। শেষ পর্যন্ত চিকিৎসকের পরামর্শে ঈদুল ফিতরের কয়েকদিন আগে বাড়ি থেকে ৭০ কিলোমিটার দূরের মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে এমআরআই করানো হয়। তবে ঈদের পর রিপোর্ট দেওয়ার কথা থাকলেও রাজ্যে লকডাউন জারি হওয়ায় বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এমতাবস্থায় পেশায় ঘুঘনি বিক্রেতা মিজানুর রহমান নামে ওই যুবক তার বাড়ি মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ থানার উত্তর চাচণ্ডো গ্রাম হতে সাইকেলে চড়ে হাসপাতালে রওনা দেন। সকাল ৬টায় বাড়ি থেকে বের হয়ে দীর্ঘ ৮ ঘণ্টার রাইড শেষে বিকাল ৪টায় রিপোর্ট নিয়ে ফিরে আসেন মিজানুর। হাসপাতালে আসা-যাওয়া মিলিয়ে তার পাড়ি দিতে হয়েছে ১৪০ কিলোমিটার পথ!

সংবাদ মাধ্যমকে মিজানুর বলেন, ‘‘আমার মা অসুস্থ। লকডাউনের কারণে গাড়িও চলছিল না। তাই সাইকেলে করেই গিয়েছিলাম। সকাল ৬টায় বাড়ি হতে বেরিয়েছিলাম। রিপোর্ট নিয়ে বাড়ি ফিরি বিকেল ৪টায়।’’

মিজানুরের এই অসাধ্য কাজকে সাধুবাদ জানিয়েছেন প্রতিবেশীরাও। প্রতিবেশিরা বলেছেন, ‘‘মায়ের জন্য এরকম ভালোবাসা বর্তমানে দেখা যায় না। মিজানুর ভাইকে স্যালুট জানাচ্ছি।’’

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...