The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নিশো-মেহজাবীনের নতুন নাটক ‘ঘটনা সত্য’

নাটকটি শীঘ্রই উন্মুক্ত হতে চলেছে সিএমভি’র ইউটিউব চ্যানেলে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ নিশো-মেহজাবীনকে দেখা যায় বিভিন্ন সময় বিভিন্ন নাটকে। তবে এবার একটু ব্যতিক্রমি চরিত্রে তাদের দেখা যাবে একটি নাটকে। নাটকটির নাম ‘ঘটনা সত্য’।

নিশো-মেহজাবীনের নতুন নাটক ‘ঘটনা সত্য’ 1

চিত্রনাট্যের কারণে নানা চরিত্রেই অভিনয় করতে হয় অভিনেতা বা অভিনেত্রীদের। এবার আফরান নিশো ও মেহজাবীন চৌধুরীকেও তেমন একটি ব্যতিক্রমি চরিত্রে দেখা যাবে। এবার তারা হাজির হচ্ছেন গাড়ির ড্রাইভার ও গৃহপরিচারিকার চরিত্রে।

এমন দুটি ভিন্ন চরিত্রকে মুখ্য করে সম্প্রতি ‘ঘটনা সত্য’ নামে বিশেষ একটি নাটক নির্মাণ করেছেন সময়ের হিট নির্মাতা রুবেল হাসান। মঈনুল সানুর চিত্রনাট্যে নাটকটি নির্মিত হলো সিএমভি’র ব্যানারে।

গল্প সম্পর্কে নির্মাতা রুবেল জানিয়েছেন, বিলকিছ এবং মুকুল পাশাপাশি দুটি ফ্ল্যাটের গৃহপরিচারিকা এবং গাড়ির ড্রাইভার। এরা সব সময় এটা সেটা চুরি করে থাকে, কাজেও ফাঁকি দেয়, মিথ্যা কথাও বলে! এতে মালিক পক্ষ নানাভাবে হয়রানির শিকার হন। শুধু তাই নয়, কাজের মেয়ে বিলকিছ বাজার থেকে সস্তা এবং পঁচা সবজিও কিনে আনে, ফ্রিজে রাখা খাবারও অনেক সময় এঁটো করে রাখে, বাসায় রাখা অন্যের কসমেটিকস নিজে ইচ্ছেমতো ব্যবহার করে বসে, অপচয়ও করে।

অপরদিকে মুকুলও মিথ্যা কথা বলে, ডিউটি বাদ দিয়ে অন্যত্র যাত্রী বহন করে, লুকিয়ে লুকিয়ে গাড়ির তেল বিক্রি করে। ঘটনাক্রমে বিলকিছ এবং মুকুলের সম্পর্ক প্রণয়ে রূপ নিলে সেটি মিষ্টি প্রেমের একটি গল্প হয়ে ওঠে। যদিও এই মিষ্টি প্রেমের পরিণতি হয় ভয়ংকর রকম বিষাদের।

নাটকটি সম্পর্কে রুবেল হাসান বলেছেন, ‘গল্পের শুরুটা মিথ্যা ও চুরি দিয়ে হলেও শেষ পর্যন্ত সেটি মানবিক একটি প্রেমের গল্পে রূপ নেয়। গল্পটি ব্যতিক্রম, নিশো ভাই ও মেহজাবীন আপু এতে অসাধারণ অভিনয় করেছেন। একেবারে চরিত্র দুটির সঙ্গে তারা যেনো মিশে গেছেন। আশা করছি দর্শকরাও তাদের কাজটি দেখে মুগ্ধ হবেন। পাবেন অন্য এক বার্তাও।’

নাটকটির প্রযোজক এসকে সাহেদ আলী পাপ্পু সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘ঘটনা সত্য’ নাটকটি শীঘ্রই উন্মুক্ত হতে চলেছে সিএমভি’র ইউটিউব চ্যানেলে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...