The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

যুক্তরাষ্ট্র ১০০ দেশে অনুদান স্বরূপ ৫০ কোটি ভ্যাকসিন দিবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ২০২২ সালের মধ্যে ১০০টি স্বল্প আয়ের দেশে অনুদান হিসেবে ৫০০ মিলিয়ন অর্থাৎ ৫০ কোটি করোনার ভ্যাকসিন দিবে।

যুক্তরাষ্ট্র ১০০ দেশে অনুদান স্বরূপ ৫০ কোটি ভ্যাকসিন দিবে 1

৯ জুন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে এই সংক্রান্ত একটি চুক্তিও স্বাক্ষর করেছে বাইডেন সরকার। এইসব ভ্যাকসিন মার্কিন কোম্পানী ফাইজারের কাছ থেকে ক্রয় করবে।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, চলতি বছর অন্তত ২০ কোটি ডোজ করোনার ভ্যাকসিন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অনুদান হিসেবে দেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বাকি ৩০ কোটি ডোজ ২০২২ সালের প্রথম ৬ মাসের মধ্যে দরিদ্র এবং সুবিধাবঞ্চিত দেশগুলোর মধ্যে বন্টন করবে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অনুদানপ্রাপ্ত দেশগুলো হবে আফ্রিকা ইউনিয়নের সদস্য এবং বিশ্বের অন্যান্য স্বল্প আয়ের দেশ।

এই খবরটি বাইডেন প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের কিছু কর্মকর্তার সূত্র উল্লেখ করে প্রকাশ করে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম। তবে হোয়াট হাউজের তরফ হতে এই বিষযে এখনও কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হয়নি। সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) সহ বহু আন্তর্জাতিক মহল ভ্যাকসিন কুক্ষিগত করে রাখার কারণে যুক্তরাষ্ট্রসহ উন্নত দেশগুলোর কঠোর সমালোচনা করে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, বিশ্বব্যাপী টিকাদান কর্মসূচি সম্পন্ন করতে আরও ১১ বিলিয়ন টিকার প্রয়োজন। অবশ্য গত সপ্তাহে বাইডেন প্রশাসন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে ৮০ মিলিয়ন ডোজ তথা ৮ কোটি টিকা ভাগাভাগি করার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছে।

জানানো হয়েছে যে, আগামী ৪ জুলাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবসের আগেই দেশটির ৭০ শতাংশ বয়স্ক মানুষকে টিকাদান কর্মসূচির আওতায় নিয়ে আসা হবে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের (সিডিসি) তথ্য অনুযায়ী দেখা যায়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই পর্যন্ত ৩০ কোটি ৩ লাখ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। দেশটির ১৭ কোটি ১ লাখ মানুষ কমপক্ষে একটি করে ডোজ টিকা পেয়েছেন। আর দেশটির ১৪ কোটি মানুষ দুটি ডোজই পেয়ে গেছেন ইতিমধ্যেই।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...