The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

সুইমিংপুলটি দেখলে মনে হবে পানির নিচে এক শহর!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সুইমিংপুলের তলদেশ সাজানো হয়েছে প্রাচীন এক শহরের আদলে! সেখানে মন চাইলেই খেলতে পারবেন বিলিয়ার্ড, ভিডিও গেমসহ নানা রকম খেলাধুলা!

সুইমিংপুলটি দেখলে মনে হবে পানির নিচে এক শহর! 1

শুধু তাই নয়, এই সুইমিংপুলটিতে চালানো যাবে সাইকেলও! এমনকি এই পুলের নিচে রয়েছে সিনেমা শুটিংয়ের স্টুডিও। এডিটিংয়ের জন্য তার পাশেই রয়েছে এডিটিং রুম। রয়েছে আলোকচ্ছটা আর সুরের এক খেলা!

গভীরতম সুইমিংপুলটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে চালু হচ্ছে। এই পুলের নিচেই রয়েছে একটি নতুন শহর। মূলত পানির নিচের আজব এই জগৎই পুলটির আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। সাঁতার কাটার সময় আরাম-আয়েশের যেনো কোনো কমতি না পড়ে, সে জন্য খেয়াল রাখা হয়েছে পানির তাপমাত্রার উপরেও। এই সুইমিংপুলে পানির তাপমাত্রা থাকবে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। নিরাপত্তার বিষয়েও কোনো ঘাটতি রাখেনি সুইমিংপুল কর্তৃপক্ষ। সেখানে নজরদারিতে থাকবে ৫৬টি সিসি ক্যামেরা। জরুরি অবস্থা মোকাবিলায় থাকছে ১২ জনের স্থান সংকুলান এমন একটি চেম্বারও!

সুইমিংপুলটিতে রয়েছে ঝিনুক আকৃতির ১ হাজার ৫০০ বর্গমিটারের বিশাল এক কমপ্লেক্স এই ভবনের ভেতরে। এই কমপ্লেক্সে রয়েছে একটি রেস্তোরাঁও। সুইমিংপুলটির গভীরতা হলো ১৯৬ ফুট। সুইমিংপুলটিতে পানির ধারণক্ষমতা ১ কোটি ৪০ লাখ লিটার। আকৃতিতে এটি অলিম্পিকের ৬টি পুলের সমান। গত ২৭ জুন এই সুইমিংপুলটি গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের খাতায় নাম লিখিয়েছে।

এই বিশেষ সুইমিংপুলটি প্রথম যারা ঘুরে দেখেছেন, তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন দুবাইয়ের যুবরাজ শেখ হামদান বিন মুহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম। এই নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজের অভিজ্ঞতার কথাও জানিয়েছেন যুবরাজ। তবে সেখানে বর্তমানে শুধু আমন্ত্রিত অতিথিরাই ভ্রমণ করতে পারবেন। তবে সবার জন্য সুইমিংপুলটি খুলে দেওয়া হবে চলতি বছরের শেষের দিকে- এমনটিই জানানো হয়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...