The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এবার ঈদে অনলাইন প্লাটফর্মে দৈনিক প্রায় ২০০ কোটি টাকার পশু বিক্রি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ করোনা ভাইরাসের ভয়াবহ সংক্রমণ এড়াতে কোরবানীর পশু বিক্রির মাধ্যম হিসেবে ‘অনলাইন প্লাটফর্ম’গুলো বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এবার ঈদে অনলাইন প্লাটফর্মে দৈনিক প্রায় ২০০ কোটি টাকার পশু বিক্রি।

এবার ঈদে অনলাইন প্লাটফর্মে দৈনিক প্রায় ২০০ কোটি টাকার পশু বিক্রি 1

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, কোরবানীর ঈদকে কেন্দ্র করে প্রতিদিন এই মাধ্যমে প্রায় ২০০ কোটি টাকার পশু বিক্রি হচ্ছে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী জানা যায়, অনলাইন পশু বিক্রি ২০০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। গড়ে প্রতিদিন ১৭ হাজারের মতো পশু বিক্রি হচ্ছে অনলাইনে।

গত ১৭ জুলাই প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কোরবানিযোগ্য পশু বিক্রয় কার্যক্রম অগ্রগতির সর্বশেষ প্রতিবেদনে এইসব তথ্য উঠে আসে। ২ জুলাই হতে ১৭ জুলাই পর্যন্ত ১৬ দিনে অনলাইনে এসব পশু বিক্রি হয়। এই পর্যন্ত গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া সহ কোরবানীযোগ্য পশুর অনলাইন বাজার বসেছে প্রায় ১৮০০টির মতো।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, গত ১৬ দিনে মোট ২ লাখ ৮৯ হাজার ৮১৯টি পশু বিক্রি হয়, যার বাজারমূল্য হলো ২ হাজার ১৪২ কোটি ৫৫ লাখ ৭ হাজার ১৬৮ টাকা। মাত্র একদিনে শনিবারই বিক্রি হয়েছে ২৫ হাজার ৯৯২টি পশু। যার বাজারমূল্য হলো ১৭৭ কোটি ৮৬ লাখ ৬ হাজার ৩৪১ টাকা।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায় যে, অনলাইনে পশু বিক্রিতে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে রয়েছে চট্টগ্রাম বিভাগ। এই বিভাগে মোট ১ লাখ ৪৩ হাজার ৪১৬টি পশু বিক্রি হয়, যার বাজারমূল্য হলো ১ হাজার ২৫ কোটি ২১ লাখ ২৪ হাজার ৯৪৮ টাকা।

পরের স্থানেই রয়েছে ঢাকা বিভাগ। এই বিভাগে এ পর্যন্ত ৪০ হাজার ৫০৬টি পশু বিক্রি হয়েছে ৩৮৭ কোটি ৪৬ লাখ ৯৩ হাজার ২৩২ টাকায়।

রাজশাহী বিভাগে বিক্রি হয়েছে ৪১ হাজার ২৮১টি পশু যার মূল্য ২৩৫ কোটি ৯৩ লাখ ৮২ হাজার ৮৪০ টাকা।

খুলনা বিভাগে ১৬ হাজার ৩০৩টি কোরবানীর পশু বিক্রি হয়েছে যার মূল্য ১০৩ কোটি ৬৪ লাখ ১৯ হাজার ১০০ টাকা।

বরিশাল বিভাগে ২ হাজার ২৭০টি গবাদি পশু বিক্রি হয়েছে যার মূল্য ১৫ কোটি ৫১ লাখ ৭৯ হাজার ৪০০ টাকা।

সিলেট বিভাগে ৩ হাজার ২৬৩টি কোরবানির পশু বিক্রি হয়েছে যার মূল্য ১৯ কোটি ১৯ লাখ ৩৪ হাজার ২৫৮ টাকা।

রংপুর বিভাগে ৪১ হাজার ১৭৬টি পশু বিক্রি হয়েছে যার মূল্য ২০৯ কোটি ২৩ লাখ ৯ হাজার ৩১০ টাকা।

ময়মনসিংহ বিভাগে বিক্রি হয়েছে ১ হাজার ৬০৪টি পশু যার মূল্য ১৪ কোটি ৬৩ লাখ ৪৬ হাজার ৪০০ টাকা।

মোট বিক্রি হয়েছে ২ লাখ ৮৯ হাজার ৮১৯টি পশু। যার মধ্যে গরুর সংখ্যা ২ লাখ ২৩ হাজার ৩৪৯টি ও ছাগল এবং ভেড়া রয়েছে ৬৬ হাজার ৪৭০টি। সবমিলিয়ে কোরবানীর মোট বাজারমূল্য ২ হাজার ১৪২ কোটি ৫৫ লাখ ৭ হাজার ১৬৮ টাকা।

অধিদপ্তরের খামার শাখা সূত্র জানিয়েছে, সারাদেশে চলতি বছর কোরবানীযোগ্য ১ কোটি ১৯ লাখ ১৬ হাজার ৭৬৫টি পশু প্রস্তুত রয়েছে। গত বছর যা ছিল ১ কোটি ১৮ লাখ ৯৭ হাজার ৫০০টি পশু। কোরবানী উপলক্ষে জবাই করা পশুর সংখ্যা ছিল ৯৪ লাখ ৫০ হাজার ২৬৩টি। অবশ্য এর আগের বছরে এক কোটি ৪ থেকে ৫ হাজার পশু জবাই হয়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...