The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

আলজেরিয়ান জুডোকা ইসরায়েলির সঙ্গে খেলবেন না বলে অলিম্পিক ছেড়ে দিলেন!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অলিম্পিকে খেলার জন্য বছরের পর বছর ধরে অপেক্ষায় থাকেন অনেকেই। এটিকে জীবনের একটি স্বপ্ন হিসেবেও দেখা হয়। কিন্তু আলজেরিয়ান জুডোকা ইসরায়েলির সঙ্গে খেলবেন না বলে সেই অলিম্পিকই ছেড়ে দিলেন!

আলজেরিয়ান জুডোকা ইসরায়েলির সঙ্গে খেলবেন না বলে অলিম্পিক ছেড়ে দিলেন! 1

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞ হলো এই অলিম্পিক। যার জন্য মানুষ বছরের পর বছর ধরে তপস্যা করেন। তবে আলজেরিয়ান জুডোকা ফেথি নওরিন এই স্বপ্নের মঞ্চ ছেড়ে দিতে বিন্দুমাত্র পরোয়া করলেন না, বললেন- ইসরাইলের মতো দেশের কোনো প্রতিযোগীর সঙ্গে কখনও অংশগ্রহণ করতে পারি না। ইসরায়েলি প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলতে হবে বলেই চলতি টোকিও অলিম্পিক থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিলেন এই অ্যাথলেট ও তার কোচ।

আন্তর্জাতিক জুডো ফেডারেশন গতকাল (শনিবার) এই খবরটি নিশ্চিত করেছে। সেই সঙ্গে সাময়িকভাবে এই দুজনকে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার কথাও জানিয়েছে। শুধু এখানেই শেষ নয়, তদন্ত কমিশন পুরো ঘটনা তদারকি করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে বলেও জানিয়েছে। অর্থাৎ তাদের শাস্তি আরও বাড়তে পারে।

তবে তারপরও এসব কিছুতেই মোটেও পরোয়া করছেন না ৩০ বছর বয়সী নওরিন। আলজেরিয়ান টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘আমরা অলিম্পিকে আসার জন্য অনেক কষ্ট করেছি। তবে ফিলিস্তিনের বিষয়টি সব কিছুর ওপরে।’

শিষ্যের এমন সিদ্ধান্তে সমর্থনও জানিয়েছেন তার কোচ বেনিখালেফ। তিনি বলেছেন, ‘ড্রটা সত্যিই আমাদের জন্য দুর্ভাগ্যজনক ছিল। আমরা ইসরায়েলি প্রতিপক্ষ পেলাম, আর এজন্যই আমাদের সরে যেতে হলো। আমরা সঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছি।’

আলজেরিয়ান নওরিনের টোকিও অলিম্পিকে ৭৩ কেজি ওজন শ্রেণীতে অংশ নেওয়ার কথা ছিল। যদিও এবারই তার সরে যাওয়ার ঘটনা তার প্রথম নয়। ২ বছর আগেও টোকিওতেই ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপ হতে এই জুডোকা সরে দাঁড়িয়েছিলেন ইসরায়েলি প্রতিপক্ষকে এড়িয়ে যাওয়ার জন্য।

ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি বাহিনীর দখলদারিত্বের প্রতিবাদ জানিয়ে মিশর এবং ইরানের অ্যাথলেটদেরও সরে যাওয়ার নজির রয়েছে।

উল্লেখ্য, দখলদার ইসরাইল নিরীহ ফিলিস্তিনিদের ওপর বছরের পর বছর ধরে আক্রমণ নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে। যে কারণে মুসলিম বিশ্বের অনেক দেশ ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। ইসরাইলের সঙ্গে বাংলাদেশেরও কুটনৈতিক সম্পর্ক নেই।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...