The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ত্বকের যত্নে হলুদের উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নিন

ব্যথা-বেদনা হতে সংক্রমণ বা রূপ চর্চা, সকল কিছুতেই বেশ উপকারী এই হলুদ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ হলুদের উপকারিতা সম্পর্কে আমরা হয়তো কিছু কিছু জানি। তবে আজ জেনে নিন ত্বকের যত্নে হলুদের উপকারিতা সম্পর্কে।

আয়ুর্বেদ বা কবিরাজি, সেই প্রাচীনকাল হতেই হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে। ব্যথা-বেদনা হতে সংক্রমণ বা রূপ চর্চা, সকল কিছুতেই বেশ উপকারী এই হলুদ। এটি এমন একটি প্রাকৃতিক উপাদান যা ত্বকের জন্য প্রসাধনী হিসেবেও খুবই ভালো। হলুদে কারকিউমিন নামক বায়ো অ্যাকটিভ উপাদান রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্টও। আজ তাহলে ত্বক চর্চায় হলুদের ব্যবহার জেনে নিন।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে

হলুদের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটারি উপাদান ত্বক উজ্জ্বল রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। ত্বকের স্বাভাবিক আভাকে তুলে ধরা হলো হলুদের প্রধান কাজ। সেজন্য একটি হলুদ, মধু ও দই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে মুখে লাগাতে হবে। ১৫-২০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলতে হবে।

ডার্ক সার্কেল দূর করা

হলুদ অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদানে ভরপুর হওয়ার কারণে ডার্ক সার্কেল দূর করতে বিশেষ অবদান রাখে। সেজন্য প্রথমেই ২ টেবিল চামচ হলুদগুঁড়ো, ১ টেবিল চামচ দই এবং ২ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে প্যাক তৈরি করতে হবে। ডার্ক সার্কেলে প্যাকটি লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিটের মতো রাখতে হবে। এরপর ধুয়ে শুকনো তোয়ালে দিয়ে ভালো করে মুছে নিন।

অ্যাকনের দাগ পরিষ্কার করা

অ্যাকনে ত্বকের সাধারণ সমস্যা হলেও এর জন্যই কালো দাগ থেকেই যায়। অ্যাকনে কমলেও এর জন্য আবার দাগ বয়ে বেড়াতে হয়। হলুদে থাকা অ্যান্টিসেপটিক উপাদানটি অ্যাকনের জীবাণুকে বৃদ্ধি করতে দেয় না। এক চা চামচ হলুদগুঁড়োর সঙ্গে একটু দই ও এক চা চামচ মুলতানি মাটি ভালো করে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করতে হবে। এরপর এতে কয়েক ফোটা গোলাপ জল দিতে হবে। এটি ত্বকে লাগানোর পর ২০ মিনিটের মতো রেখেই ঠাণ্ডা পানি দিয়ে আবার ধুয়ে ফেলুন। তথ্যসূত্র: নিউজ এইটটিন

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...