The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নববধুর বাসররাত হলো লঞ্চের ছাদে!

অস্বাভাবিক যাত্রীর চাপে শেষে লঞ্চের ছাদেই ঠাঁই হয় এই নবদম্পতির!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সত্যিই বিচিত্র মানুষের জীবন। কখন কাকে কি অবস্থায় পড়তে হয় তার কোনো ঠিক নেই। যেমন এক নববধুকে শেষ পর্যন্ত বাসররাত করতে হয়েছে লঞ্চের ছাদে!

নববধুর বাসররাত হলো লঞ্চের ছাদে! 1

কঠোর লকডাউনের কারণে নববধুকে নিয়ে লঞ্চের ছাদেই বাসররাত কাটাতে হয়েছে রাসেল নামে এক তরুণের। অস্বাভাবিক যাত্রীর চাপে শেষে লঞ্চের ছাদেই ঠাঁই হয় এই নবদম্পতির!

এমন ঘটনায় সবাই বিস্মিত হয়েছেন। নববিবাহিত রাসেলের বোন পারভীন সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, বরিশালের উজিরপুর উপজেলার ওটরা ইউনিয়নে তাদের বাড়ি। গত ঈদুল ফিতরে তার ভাইয়ের বিয়ের কথাবার্তা ঠিক থাকলেও লকডাউন বিবেচনায় বিয়ের আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। তারপর উভয় পরিবার মিলে সিদ্ধান্ত নেন কোরবানীর ঈদে বিয়ের আয়োজন করা হবে।

তিনি আরও বলেছেন, ঈদের পরের দিনই বিয়ের আয়োজন করা হয়। গতকালও জানতাম না ২৩ জুলাই থেকে আবারও কঠোর লকডাউন দেবে। দুপুরে শুনেছি তখন কেবল আকদ হয় বধূকে, আয়োজন ছিল খাবারের। তবে লকডাউন শোনার পরপরই খাওয়া-দাওয়া না করেই নতুন বউ নিয়ে ঢাকায় রওনা দিয়েছি। জানি যেতে হয়তো কষ্ট হবে। তবে কিছুই করার নেই। তিনি জানান, তার ভাই রাসেল ঢাকায় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সেলসম্যানের কাজ করেন । আর নববধূর বাড়ি তাদের পাশের ইউনিয়নে।

পারভীন সংবাদ মাধ্যমকে আরও জানিয়েছেন, চেষ্টা করতেছি লঞ্চে একটি কেবিন সংগ্রহ করার জন্য। তবে পাচ্ছি না। নতুন বউ নিয়ে এভাবে খোলা আকাশের নিচে যেতে কেমন যেনো দেখায়। একটা দিন পরে লকডাউন দিলে হয়তো সমস্যা হতো না। না পারলাম কোরবানীর মাংস খেতে, না পারলাম বিয়েটা ভালোভাবে করাতে।

জানা গেছে, রাত ৮টার দিকে লঞ্চটি চাড়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে। ঢাকায় পৌঁছায় ভোরের দিকে। এর আগে সন্ধ্যা ৬টার দিকে তারা লঞ্চে ওঠেন। পারাবত-১০ লঞ্চের যাত্রী ছিলেন এই নবদম্পতি।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...