The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

‘আয়নাবাজি’র পর চঞ্চলের এবারের চলচ্চিত্র ‘মুন্সিগিরি’

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ‘আয়নাবাজি’ দিয়েই বাজিমাত করেছিলেন নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী। যে সিনেমায় এই নির্মাতা নির্ভর করেন গুণী অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর উপর। আবারও চঞ্চলকে নিয়ে বানাচ্ছেন ‘মুন্সিগিরি’।

‘আয়নাবাজি’র পর চঞ্চলের এবারের চলচ্চিত্র ‘মুন্সিগিরি’ 1

‘আয়নাবাজি’র এই নির্মাতা ও অভিনেতা জুটি এবার আসতে চলেছেন ওটিটি প্লাটফর্ম চরকিতে! চরকি আগেই জানিয়েছে যে, তাদের প্লাটফর্ম থেকে ‘মুন্সিগিরি’ নামে ওরিজিনাল ওয়েব ফিল্ম নির্মাণ করছেন নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী। তখনই জানা যায় যে, সিনেমার মতো অমিতাভ রেজার প্রথম ওয়েব ফিল্মেরও কেন্দ্রীয় চরিত্রে থাকছেন চঞ্চল চৌধুরী। এবার প্রকাশিত হয়েছে সেই প্রতীক্ষিত সিনেমার প্রথম পোস্টার!

গত বুধবার সন্ধ্যায় চরকি থেকে অমিতাভ-চঞ্চলের আসন্ন ওয়েব ফিল্ম ‘মুন্সিগিরি’র পোস্টার উন্মোচন করা হয়েছে। পোস্টারে শুধুমাত্র চঞ্চলকেই দেখা যায়। তবে পোস্টারে সিনেমার নাম নিয়ে কিছুটা দ্বন্দ্বে রয়েছেন সাধারণ দর্শক। কারণ হলো পোস্টারে লেখা শিবব্রত বর্মন এর উপন্যাস অবলম্বনে ‘মুন্সিগিরি’। ঠিক এর নিচেই বড় বড় অক্ষরে লেখা ‘মৃতেরাও কথা বলে’!

বহু দর্শক প্রশ্ন করেছেন, আসলে সিনেমার নাম কী, ‘মুন্সিগিরি’ না ‘মৃতেরাও কথা বলে’? এমন প্রশ্নই রাখা হয় নির্মাতা অমিতাভ রেজার চৌধুরীর কাছে। তিনি বলেন, এটা একটা কনফিউসন তৈরি হয়েছে। এটা আমাদেরই একটা ভুল। আসলে ওয়েব ফিল্মটির নাম ‘মুন্সিগিরি’, এটা শিবব্রত বর্মনের ‘মৃতেরাও কথা বলে’ অবলম্বনে নির্মিত। এটি পোস্টারে ঠিকভাবে বোঝানো যায়নি বলে অনেকের মনেই দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হচ্ছে।

ওয়েব ফিল্মটির গল্প নিয়ে জানানো হয়, ‘মুন্সিগিরি’ সিনেমার প্রথম খণ্ডে এক সরকারি কর্মকর্তার মৃত্যু রহস্যের তদন্ত করবেন মাসুদ মুন্সি নামে পুলিশের একজন গোয়েন্দা। আর এই চরিত্রেই থাকছেন চঞ্চল চৌধুরী।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের কাপড়ের মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...