The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

চিত্র-বিচিত্র: ৪০টি বিয়ে করে রেকর্ড করতে চান ছানা পাওল নামে এক ব্যক্তি!

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ ৪০টি বিয়ে করে রেকর্ড করতে চান মিজোরামের এক ব্যক্তি। তিনি ইতিমধ্যেই ৩৯টি বিয়ে করেছেন।

Sana paola

বিয়ের ক্ষেত্রে ৪০টি বিয়ে করে বিশ্ব রেকর্ড করতে যাচ্ছেন মিজোরামের ছানা পাওল। মিজোরামের অদূরে বাকাতাওয়া গ্রামের বাসিন্দা ছানা পাওল ৩৯ বার বিয়ে করে বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন। কিন্তু তাতেও ক্ষান্ত হননি। এখন তিনি ৪০ তম বিয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ৩৯ স্ত্রী, ৯৪ ছেলেমেয়ে, ১৪ পুত্রবধূ ও ৩৪ নাতি-নাতনি মিলিয়ে তার পরিবারের সদস্য সংখ্যা ১৮০ জন। তিনিই বিশ্বের সর্ববৃহৎ একান্নবর্তী পরিবারের সর্বময় কর্তা। তিনি হলেন মিজোরামের অদূরে বাকাতাওয়া গ্রামের বাসিন্দা ছানা পাওল। পরিবারটির আকার বড় হলেও কোনো সদস্যই আলাদা থাকেন না। একই ছাদের তলায় সদস্যদের রান্না হয় বিশাল চুলায়। চারতলা বাড়িতে ঘর রয়েছে মোট ১০০টি। রয়েছে প্রায় দেড়শ’ বিছানা।

এত বড় সংসার যেখানে সেখানে খাবারের আয়োজন কেমন? সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পরিবারের একবেলার খাবারের জন্য দরকার পড়ে ৩০টি মুরগি আর ৪০ কেজি চালের ভাত। বছরের পর বছর বিশ্বের এই ব্যতিক্রমী পরিবার এভাবেই চলছে। কোথাও কোনো অসুখের বাতাবরণ নেই, বেশ শান্তিতেই রয়েছেন পরিবারের সব সদস্য। সর্বময় কর্তা ছানা পাওলের কথাই চূড়ান্ত বলে ধরা হয় এখানে। সন্তানরা বড় হলেও বাবার বিরুদ্ধে কথা বলার রেওয়াজ নেই এ পরিবারে। তারা বাবাকে যেমন ভয় করে তেমনই সমীহ করে চলে। তবে শুধুই কি ছেলেমেয়েরা? ছানার স্ত্রীরাও কি স্বামীর প্রতি শ্রদ্ধাশীল? তার সর্বকনিষ্ঠ স্ত্রী রিংকমিনির বক্তব্য, এ সংসারে সবকিছুই না চাইতে পাওয়া যায়। আক্ষেপ কেবল একটাই। চাইলেই স্বামীকে কাছে পাওয়া যায় না। দীর্ঘ অপেক্ষা করতে হয়। স্ত্রীরা স্বামীর মন পেতে চারপাশে ঘুরে বেড়ান সব সময়।

টানা তিন দিন ধরে ছানা পাওলের ৬৮তম জন্মদিন পালন করেন পরিবারের সদস্যরা। এত কিছুর পরেও সাধ মেটেনি পাওলের। ফের বিয়ে করতে চান। আর এই বিয়ের জন্য পাত্রীর সন্ধানও শুরু করে দিয়েছেন। শীঘ্রই ৪০ তম বিয়ের পিড়িতে বসবেন এমনটাই আশা করছেন ছানা পাওল।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...