দেশে গুম-হত্যা-অপহরণের ঘটনায় প্রবাসীদের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা ॥ বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে বিনিয়োগে

ঢাকা টাইমস্‌ রিপোর্ট ॥ সামপ্রতিক সময়ে দেশে গুম ও অপহরণের ঘটনা বেড়েছে। আর এই ঘটনার জন্য দেশে বিদেশী বিনিয়োগও বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। বিদেশীরা এ দেশের বিনিয়োগে নিরাপদ বোধ করছে না। কারণ একদিকে তাদের ব্যক্তি নিরাপত্তা অপর দিকে দেশের আন্দোলন-ধর্মঘটের কারণে লোকসানের চিন্তা। যে কারণে শুধু দেশেই নয়, বিদেশেও আজ এই গুম অপহরণ ঘটনায় উদ্বিগ্ন সবাই।

এমনিতেই সামপ্রতিক সময়ের গুম অপহরণ ঘটনায় সবাই উদ্বিগ্ন তারওপর ১৭ এপ্রিল বিএপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী গুম হওয়ার ঘটনায় এ হতাশা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। এ অপহরণের ঘটনাটি দেশের মতো প্রবাসেও প্রভাব পড়েছে। প্রবাসে বিভিন্ন দেশে এরই মধ্যে বিএনপি এবং অন্যান্য সামাজিক সংগঠন অপহূত নেতার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেছে। বিভিন্ন দেশের সংসদে স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কাজ করে এমন সংস্থাগুলোতে বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতির কথা জানিয়ে স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে। আর ঢাকার সব দূতাবাস কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিএনপি বৈঠকের পর নিজ নিজ দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দ্রুত খবরটি দাফতরিকভাবে চলে আসে। বাংলাদেশকে সাহায্য করেন এমন দেশ ও সংস্থার কাছে গুম হওয়ার বিষয়টি জানাজানি হয়।

বলা যায়, সব মিলিয়ে বাংলাদেশের ভেতরে ইলিয়াস আলী গুম হওয়ার বিষয়টি যেমন উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে, তেমনি দেশের বাইরে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এটি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যে। এভাবে গুম হয়ে যাওয়াকে কোন অবস্থাতেই ভালো চোখে দেখছেন না তারা। শুধু বিরোধী দল নয় স্বয়ং সরকারি দলের কর্মী-সমর্থকরা মনে করছেন, দেশের নাগরিকদের নিরাপত্তা প্রদানে সরকারকেই দায়-দায়িত্ব নিতে হবে। কে কোন দল করে তা এখানে যেন প্রধান বিবেচ্য না হয়। সবার নিরাপত্তা দেয়া সরকারের দায়িত্ব।

প্রবাসীরা মনে করেন, কারও গুম, হত্যা নিয়ে রাজনীতি না করা ভালো, এতে হত্যার রাজনীতিকে উস্কে দেবে, যা গণতন্ত্রের জন্য হুমকি হয়ে উঠবে। প্রবাসী নেতারা মনে করেন, বিদেশী বা প্রবাসী বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে দেশের আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি ‘জিরো টলারেন্সে’ নিয়ে আসা উচিত। বিদেশীরা চায় যে দেশের অভ্যন্তরীণ শান্তি-শৃংখলা উন্নত, নিরাপত্তা নিশ্চিত সেসব দেশে তাদের বিনিয়োগ নিয়ে যেতে। প্রবাসী বাংলাদেশীরাও এ পরিবেশ চান।

জানা গেছে, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। সর্বশেষ ‘হিউম্যান রাইট ওয়াচ’ তাদের উদ্বেগের কথা বাংলাদেশ সরকারকে জানিয়েছে। যে কারণে দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে তা এখন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের ভাবমূর্তিতে আঘাত করছে। এমতাবস্থায় সরকারকে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে সেই ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধার করতে হবে। বিশেষ করে ইলিয়াস আলী ঘটনায় যে বা যারা জড়িত থাক না কেনো সরকারের উচিত তদন্ত করে তাকে উদ্ধার ও প্রকৃত ঘটনা জনসমক্ষে তুলে ধরা।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...